Total Pageviews

Wednesday, June 24, 2020

Beloved – Toni Morrison – Summary (Bangla)

Beloved – Toni Morrison – Summary (Bangla)

Beloved – Toni Morrison – Summary (Bangla)
উপন্যাসটি শুরুর স্থান ১৮৭৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ওহিয়ো অঙ্গরাজ্যের (Ohio) সিনসিনাটি (Cincinnati) যেখানে সিথি (Sethe) নামের একজন সাবেক দাস তার ১৮ বছর বয়সী মেয়ে ডেনভারের (Denver) সাথে বসবাস করত। সিথির শাশুড়ি বেবি সাগস (Baby Suggs) বছর আগে মারা যান এবং মৃত্যুর আগে পর্যন্ত তিনি সিথিদের সাথে বসবাস করত। বেবি সাগসের মৃত্যুর কিছুদিন পূর্বে সিথির ছেলে হাওয়ার্ড (Howard) বাগলার (Buglar) বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। ১২৪ ব্লু স্টোন রোডের (Bluestone Road) বাড়িতে একটি প্রেতাত্মার উপস্থিতির কারণেই সিথির দুই ছেলে বাড়ি ছাড়ে ডেনভার প্রেতাত্মাটিকে পছন্দ করত এবং সবার ভাবে এটি তার মৃত বোনের আত্মা।
উপন্যাস এর শুরুতে প্রায় ২০ বছর পরে পল ডি (Paul D) সিথির বাড়িতে আসে। কেন্টাকিতে (Kentucky) মি. গার্নারের (Mr. Garner) সুইট হোম প্ল্যানটেশনে (Sweet Home plantation) পল ডি সিথির সহকর্মী ছিল। 
তার উপস্থিতি সিথির মনে প্রায় ২০ বছর ধরে ঘুমিয়ে থাকা স্মৃতিগুলোকে আবার জাগিয়ে তোলে। এখান থেকে গল্পটি দুইটি ভাগে বিভক্ত হয় একদিকে সিনসিনাটিতে বর্তমানে ঘটা ঘটনার বর্ণনা দেওয়া হয় এবং অপরদিকে প্রায় ২০ বছর আগে কেন্টাকিতে ঘটা একগুচ্ছ ঘটনার বর্ণনা দেওয়া হয়। এই দ্বিতীয় অংশের বর্ণনা প্রধান চরিত্রগুলোর খণ্ড খণ্ড স্মৃতির মাধ্যমে আমরা জানতে পারি। এই স্মৃতি গুলো ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রের বর্ণনার মাধ্যমে বার বার আমাদের সামনে আসে এবং প্রতি নতুন বণর্নাতে পূর্বের সাথে নতুন নতুন কিছু তথ্য যোগ হয়। এই খণ্ড খণ্ড স্মৃতিগুলো থেকেই নিচের ঘটনাগুলো পাওয়া যায়:
উপন্যাসের প্রধান চরিত্র সিথি এক আফ্রিকান মায়ের কোলে জন্মায় যাকে সে চেনে না ১৩ বছর বয়সে তাকে সুইট হোম উপনিবেশের মালিক জনাব গার্নারের কাছে দাস হিসেবে বিক্রয় করে দেওয়া হয়। মি. গার্নার তুলনামূলকভাবে একজন সহৃদয় ব্যক্তি সুইট হোমে পুরুষ দাসরা সিথির প্রতি শারীরিক প্রলোভন অনুভব করত কিন্তু কখনও তাকে স্পর্শ করেননি। এরা হলো সিক্সো (Six0), পল ডি (Paul D), পল (Paul A), পল এফ (Paul F) এবং হ্যাল (Halle)
সাপ্তাহিক ছুটিতে কাজ করে মায়ের দাসত্বমোচনের চেষ্টা করছিল হ্যাল এবং কিছুটা এই জন্যেই সিথি হ্যালকে পসন্দ করত তাকে বিয়ে করে। সিথি এবং হ্যাল এর ছিল ২টি ছেলে (হাওয়ার্ড এবং বাগলার) এবং তাদের টি বাচ্চা মেয়েও হয় যার নাম (বিলাভড) জানা যায় না। যখন সিথি সুইট হোম ত্যাগ করে তখন চতুর্থ সন্তান (ডেনভার) তার গর্ভে ছিলো মি. গার্নারের মৃত্যুর জন্য পরে ফামর্টা চালানোর জন্য তার স্ত্রী মিসেস গার্নার (Mrs. Garner) গার্নারের ভাই স্কুলটিচারের এর সাহায্য চান। সে ছিল অত্যাচারী এবং কট্টর বর্ণবাদী দাসদের কাছে সে স্কুলটিচার (School teacher) নামে পরিচিতি পান স্কুলটিচারের দ্বায়িত্বের সময়ে সুইট হোমে দাসদের জীবনযাপন আগের থেকে আরো অনেক কঠিন হয়ে যায়। দাসরা পরামর্শ করে পালানোর সিদ্ধান্ত নেয়
স্কুলটিচার আর তার ভাতিজারা দাসদের পালানোর বিষয়টা পূর্বেই বুঝে ফেলে এবং পালানোর সময় পল ডি আর সিক্সোকে ধরে ফেলে। স্কুলটিচার সিক্সোকে হত্যা করে এবং পল ডি-কে সুইট হোমে ফেরত আনে, পল ডি- মতে এখানেই তার সাথে সিথির শেষ দেখা হয়। আগেই তার সন্তানদের সিনসিনাটিতে শাশুড়ি বেবি সাগসের বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়ার পর সিথি তখনও পালানোর পথ খুঁজতে থাকে সম্প্রতি পলাতক দাসদের ধরে স্কুলটিচারের ভাতিজারা পশুর মতো আচরণ করে, তারা সিথিকে শস্যাগারে আটক করে এবং তাকে অবমাননা করে; তারা সিথির স্তন থেকে তার শিশু মেয়ের জন্য জমানো দুধ বের করে।
সিথির অজান্তে হ্যাল তাকে শস্যাগারের চিলেকোঠার উপর থেকে এই অবস্থায় দেখতে পায় এবং আতঙ্কে তার শরীর পাথরের মতো স্থির হয়ে যায় হ্যাল পরে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে যায় এবং পল ডি তাকে দুধের পাত্রের পাশে মুখে মাখন মেখে বসে থাকতে দেখে এদিকে পালানোর শাস্তি হিসেবে পল ডি-কে মুখে লোহার কড়িয়াল পরানো হয়।
স্কুলটিচার যখন জানতে পারে সিথি মিসেস গার্নারের কাছে তার এবং তার ভাতিজাদের অপকর্মের খবর দিয়েছে তখন সে তাকে চাবুকাঘাত করায় যদিও সিথি তখন গর্ভবতী ছিল। এতকিছুর পরেও আহত সিথি সুইট হোম থেকে পালিয়ে যায় এবং পালানোর সময় রাস্তায় একটি বনের মধ্যে সে প্রচণ্ড অসুস্থ হয়ে যায়। অ্যামি ডেনভার (Amy Denver) নামের একজন শ্বেতাঙ্গ মেয়ে তাকে এই অবস্থায় খুজে পায় এবং সেবাশুশ্রুষা করে সুস্থ করে তোলে। পরে একটি নৌকায় অ্যামি সিথির বাচ্চাটি জন্ম দিতে সাহায্য করে। সিথি অ্যামি ডেনভারের সম্মানে তার দ্বিতীয় মেয়ের নাম রাখে ডেনভার। ওহিয়ো নদী পার হয়ে তার শাশুড়ি বেবি সাগসের বাড়িতে যেতে সিথি স্ট্যাম্প পেইড (Stamp Paid) নামের আরো একজনের সাহায্য পায়। স্ট্যাম্প পেইড নৌকার দাঁড় টেনে সিথিকে নদী পার করে দেয়।
বাড়িতে পৌছানোর পর বেবি সাগস সিথিকে পরিষ্কার করে তারপরে বাচ্চাদের সাথে দেখা করতে দেন। | বেবি সাগস সিনসিনাটির কৃষ্ণাঙ্গ সম্প্রদায়ের মাঝে ধর্মপ্রচারক এর দায়িত্ব পালন করতেন, সিথি তার কাছে ২৮টি দিন অনেক আনন্দের সাথে কাটায়। শেষদিনে সিথি এবং তার সন্তানদের সুইট হোমে ফেরত নিয়ে যাওয়ার জন্য স্কুলটিচার আসে। সন্তানদের একটা অমানবিক দাসত্বের জীবনে সমর্পন করা থেকে বাচাতে সিথি উডশেড (woodshed ) থেকে সন্তানদের নিয়ে আবার পালায় এবং পরে তাদের হত্যা করার চেষ্টা করে।
সিথির এই হত্যাচেষ্টায় তার নামহীন বড় মেয়েটি মারা যায়; সিথি করাত (handsaw) দিয়ে তার গলা কেটে দিয়েছিলেন। সিথি বাচ্চাটিকে কবর দেয় এবং কবর ফলকে লিখে দেয় বিলাভড (Beloved) সিথি এবং ডেনভারকে জেলে নিয়ে যাওয়া হয় এবং বডউইন্সের (Bodwins) নেতৃত্বে একদল শ্বেতাঙ্গ দাসপ্রথার বিলোপকারীদের আন্দোলনের মুখে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। সিথি ১২৪ ব্লুস্টোন রোডের বাড়িতে ফিরে আসে। যেখানে বেবি সাগস গভীর হতাশায় ডুবে ছিল
সমাজের মানুষজন সিথিদের পরিবারটিকে এড়িয়ে চলতে থাকে এবং তারা একাকীভাবে বসবাস করতে শুরু করে। এদিকে স্কুলটিচার পল ডি-কে ব্রান্ডিওয়াইন (Brandywine) নামের আরেকজন দাশ মালিকের কাছে বিক্রি করে দেন। ব্রান্ডওয়াইনকে হত্যার চেষ্টা করায় জর্জিয়ায় (Georgia) পল ডিকে একদল শিকলে বাধা আসামির দ্বারা তাকে অনেক অত্যাচার করা হয়। এই কষ্টদায়ক অভিজ্ঞতার কারণে পল তার সব স্মৃতি, আবেগ এবং ভালবাসার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। একদিন ঝড়বৃষ্টির মধ্যে পল ডি এবং চেইন গ্যাং এর বাকি সদস্যরা পালানোর সুযোগ পায় এবং তারা পালায়। এবার পল বসন্তের ফুটন্ত ফুলগুলোকে অনুসরণ করে উত্তরের দিকে এগিয়ে যেতে থাকে এবং অনেক পরে সিনসিনাটিতে সিথির বাড়ির উঠানে এসে যাত্রা শেষ করে।
পল ডি- ১২৪ ব্লস্টোন রোডে আসার পরে বর্তমান সময়ের ঘটনাগুলো ঘটতে শুরু করে। সেখানে গিয়েই পল ডি বাড়ির প্রেতাত্মাটাকে তাড়িয়ে দেয়, যার ফলে ডেনভার আরো একাকীত্বে ভোগে এবং প্রথম থেকেই সে পল ডি-কে অপছন্দ করে এবং তার উপর বিরক্ত হয়।
সিথি এবং পল ডি এর সাথে একসাথে একটি সম্ভাবনাময় ভবিষৎতের দিকে এগোতে থাকে। কিন্তু একদিন মেলা (Carnival) থেকে ফেরার সময় পথে তার তাদের বাড়ির সামনে একজন অদ্ভুত অল্পবয়সী মেয়েকে ঘুমাতে দেখে। এই মেয়েটি নিজেকে বিলাভড (Beloved) নামে পরিচয় দেয়। উপন্যাসের অধিকাংশ চরিত্র এটা বিশ্বাস করে যে এই মেয়েটিই সিথির মৃত মেয়ের আত্মা এবং উপন্যাসে এর পক্ষে প্রচুর প্রমাণ দেখানো হয়। বিলভড এর সাথে তখন ডেনভারের একরকম ঘনিষ্টতা তৈরী হয়। সিথির সাথে বিলাভড এর থেকেও এটি ছিল আরো তীব্র। বিলাভড এবং পল ডি একে অপরকে ঘৃণা করেন; বিলাভড পলকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে প্রলুব্ধ করে বাড়ির ভিতরে ছিন্নবস্ত্র পুতুলের মত ঘোরাতে থাকে। সিথির নিজের শিশু কন্যাকে হত্যা করার বিষয়টি পল ডি জানতে পারে এবং সিথির বাড়ি ছেড়ে স্থানীয় চার্চের মাটির নিচের ঘরে ঘুমাতে থাকে। তার অনুপস্থিতিতে সিথি এবং বিলাভড এর সম্পর্ক আরো তীব্র এবং গভীর হয়ে যায়।
বিলাভড অনেক জেদি আর চাহিদাশীল হয়ে যায় কিন্তু সিথি সবকিছু ছেড়ে দিয়ে তার জেদ এবং সব দাবি পূরণ করে তাকে সন্তুষ্ট করার চেষ্টা করেন। সিথি বিলাভডকে বোঝাতে চেষ্টা করতে থাকে কেন সে বিলেভডকে হত্যা করেছিল। মায়ের এমন অবস্থায় চিন্তিত হয়ে ডেনভার ১২ বছরের মধ্যে প্রথমবার বাড়ি ছাড়ে তার সাবেক শিক্ষিকা লেডি জোনসের (Lady Jones) কাছে সাহায্যের আশায়।  
সমাজে মানুষেরা পরিবারটিকে খাবার দিয়ে সাহায্য করে এবং বিলাভড এর প্রেতাত্মাকে তাড়ানোর জন্য এলা (Ella) নামের একজন মহিলার নেতৃত্বে একত্রিত হয়। এলা ভূগর্ভস্থ রেইলওয়েতে কাজ করত এবং সিথিকে পালানোর সময় সাহায্য করেছিল। সিথির বাড়িতে পৌছে তারা সিথিকে বাড়ির উঠানে নগ্ন গর্ভবতী অবস্থায় বিলাভড এর সাথে দেখেন।
মি.বডউইন (Bodwin) ডেনভারকে নতুন চাকরিতে নিতে আসে। সিথি তাকে স্কুলটিচার ভেবে বরফের চাকা নিয়ে দৌড়ে মারতে যায়। তাকে বাধা দিয়ে শান্ত করা হয় এবং এই বিশৃঙ্খলার সময় বিলাভড উধাও হয়ে যায় এবং আর কখনো ফিরে আসে না।
পরবর্তীকালে পল ডি সিথির কাছে ফিরে আসে এবং বেবি সাগসের বিছানায় শুয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনতে থাকে। বিলাভড এর শোকে সিথি বিলাপ করে ওঠে, বিলাভড ছিল তার প্রিয় জিনিস। এর উত্তরে পল ডি সিথিকে বলে তুমি নিজেই তোমার সবচেয়ে প্রিয় জিনিস। উপন্যাসটি একটি সতর্কীকরণের মাধ্যমে শেষ হয়,  - এই গল্পটি আর চালিয়ে যাওয়ার মত নয়। সেই শহরের মানুষেরা এমনকি, ১২৪ নাম্বার বাড়ির সদস্যরা পর্যন্ত বিলাভড এর কথা ভুলে গিয়েছে যেন এটি একটি যন্ত্রণাদায়ক ঘুমের সময় দেখা দূঃস্বপ্ন।

No comments:

Post a Comment

Blog Archive