Sunday, August 19, 2018

The gift of Magi - O'Henry- Bangla Translation of full story - দ্যা গিফট অফ ম্যাজাই - সম্পূর্ন গল্পের বাংলা অনুবাদ ২ পর্বের ১ম পর্ব


২য় পর্বের লিংক


The gift of Magi - O'Henry- Bangla Translation of full story


সম্মান ১ম বর্ষের অন্যান্য অনুবাদ 

The gift of Magi - O'Henry- Bangla Translation of full story 

দি গিফট অফ দ্যা ম্যাজাই - ' হেনরি - বাংলা অনুবাদ
অনুবাদ -  মারুফ মাহমুদ, ঢাকা কলেজ
সব মিলিয়ে মাত্র ১ ডলার ৮৭ সেন্ট। এর মধ্যে ষাটটি  সেন্টই ছিল খুচরো পয়সা। মুদি দোকানী, সবজি বিক্রেতা আর কসাইর সাথে রীতিমত দরদামের যুদ্ধে জয়ী হয়েই একটি দুইটি করে পয়সা গুলো জমিয়েছি। দোকানদারের সাথে দরদামের ব্যাপারে আমি কখনো বিন্দু পরিমানও ছাড় দেই নি, শেষ পর্যন্ত যুদ্ধ চালিয়ে যেতাম। 

তিনবার পয়সাগুলো গুনল ডেলা মাত্র ১ ডলার ৮৭ সেন্ট! কালই বড়দিন!!

এই মূহুর্তে পুরনো ময়লা সোফার উপর বসে বিলাপ করা ছাড়া আর কিছুই করার ছিল না, ডেলা তাই করল।

আসলে সর্বদা ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কান্না করা, আর খুশি থাকার অভিনয় করার একটি মিশ্রণই হল জীবন', ভাবলো ডেলা।

যদিও যত্নের অভাবে বাড়িটি আস্তে আস্তে  খারাপের দিকে যাচ্ছে, তবুও দেখে নেয়া যাক ডেলাদের বাড়িটির এখনকার অবস্থা কেমন। একটি সাজানো ফ্ল্যাট(তবে সুসজ্জিত নয়), যার ভাড়া প্রতি সপ্তাহে ৮ ডলার। বাড়িটি দেখে একেবারে ভিক্ষুকদের আবাস মনে না হলেও আসলে অনেকটা তেমনই

বাড়ির দরজায় একটি 'চিঠির বাক্স' আছে। এটির একেবারে বেহাল দশা ছিল, কোন চিঠিই বাক্সটির মুখ দিয়ে ভেতরে ঢুকতো না; এছাড়া একটি নষ্ট বৈদ্যুতিক সুইচও আছে, যেটাতে আঙুলের সর্বশক্তি দিয়ে কলিংবেল বাজাতে চাইলেও কাজ হয় না।

বাড়ীর প্রধান দরজায় একটি কার্ড ঝোলানো, সেখানে লেখা ছিল, 'মিস্টার জেমস ডিলিংহাম ইয়ং।'

এক সময় যখন মিঃ 'ডিলিংহামের' আয় তুলনামূলকভাবে বেশি ছিল তখন সে সপ্তাহে ৩০ ডলার বেতন পেত, কিন্তু সপ্তাহে এখন আয় কমে ২০ ডলারে নেমে আসায় সামনের দরজায় ঝোলানো 'ডিলিংহাম' লেখাটি কেমন যেন ফ্যাকাসে ও বর্ণহীন লাগছে। জিম ও ডেলা এ কারনে আরো সাধারন মানের একটি বাসা খোজার চিন্তা করল।

যখন জেমস ডিলিংহাম ইয়াং বাসায় আসেন তখন মিসেস জিম তাকে আদর করে 'জিম' নামে ডাকেন এবং তার প্রিয়তমা স্ত্রী নিয়ম করে তাকে প্রতিদিন ভালবাসার চাদরে জড়িয়ে ধরে সারাদিনের অপেক্ষার প্রহর ঘুচান।

আর মিসেস ডিলিংহাম হলেন 'ডেলা' যাকে ইতিমধ্যে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ডেলা ফোপানো থামিয়ে দুই গালে পাউডার লাগিয়ে বিষন্ন চোখে জানালার পাশে দাঁড়িয়ে দেখল একটি ধূসর বিড়াল ধূসর একটি বেড়ার উপর দিয়ে একটি ধূসর রঙের বাড়ির পিছনের উঠানে হাঁটছে।

আগামিকালই যে বড় দিন কিন্তু তার কাছে মাত্র ১.৮৭ ডলার আছে!
তা দিয়েই জিমের জন্য বড়দিনের উপহার কিনতে হবে।  এই অর্থ সে জমিয়েছে তার সারা মাসের চেষ্টায়। সপ্তাহে ২০ ডলার আয় ডেলার পরিবারের জন্য একেবারেই পর্যাপ্ত নয়; তাছাড়া ডেলা মাসের খরচের যে খসড়া হিসাব করেছিল বাস্তবে  তার চেয়ে অনেক বেশি খরচ হয়েছে
মাত্র ১.৮৭ ডলার তার জীমের উপহার কেনার জন্যে!! কেদে ফেলার উপক্রম হল ডেলার। 

জীমের জন্যে একটি বড়দিনের উপহার কেনার চিন্তা করে কত সময় ব্যয় করেছে তা বলা কঠিন, কত পরিকল্পনা ছিল তার। ডেলার ইচ্ছা ছিল উপহারটি হবে অনেক দামী তবে দুর্লভ এবং নিখাদ; তার দেওয়া উপহারটি হবে জিমের খুব প্রিয় এবং প্রতিদিনের ব্যবহার্য।

ডেলার ফ্লাটের রুম ও জানালার মাঝখানে দেয়ালের সাথে খাড়াভাবে আটকানো একটি আয়না ছিল; অনেকেই হয়তো ৮ ডলার ভাড়াফ্লাট বাড়িতে এমন আয়না দেখে থাকবেন। একজন হালকা পাতলা মানুষ তার প্রতিবিম্ব দেখে নিজের সম্পর্কে হালকা একটি ধারণা লাভ করতে পারে আর ডেলা হলো এই ধরনের মানুষের একটি সঠিক উদাহরণ।

হঠাৎ ডেলা জানালা থেকে নজর সরিয়ে লম্বা আয়নার সামনে দাঁড়ালো। তার চোখ দু'টি উজ্জ্বল হয়ে উঠলো কিন্তু মাত্র ২০ সেকেন্ডের ব্যবধানে তার সুন্দর মুখটি ফ্যাকাসে হয়ে গেল। কিছু না ভেবেই ডেলা খোঁপা বাঁধা সুন্দর চুলগুলো খুলে দিল।

জিম ও ডেলার অভাবের সংসার হলেও তাদের কাছে দু'টি মূল্যবান জিনিস ছিল; যার কারনে তারা দুজনেই খুব গর্ববোধ করত। একটি হলো জিমের স্বর্ণে ঘড়ি, যা একসময় তার দাদার মালিকানায় ছিল। পরে তার বাবার হাত ঘুরে এখন জীম সেটা পেয়েছেআর অন্যটি হলো ডেলার লম্বা ও ঘন সুন্দর চুল। এটা অনেকটা সেবার রানীর খনির রত্ন ভান্ডারের মত। ডেলা মাঝে মাঝে জানালার পাশে দাঁড়িয়ে তার লম্বা চুলগুলো জানালার বাইরে শুকাতে দেয় তখন মনে হয় সেবার রানীর মনি মানিক্যের অবমুল্যায়ন ঘটেছে

রাজা সলোমন(আঃ) যেমন তার সম্পত্তি মাটির নিচের ঘরে  রেখেছিলেন জিমও তার প্রিয় সোনালি ঘড়িটি পকেটে লুকিয়ে রাখে এবং প্রতি মুহূর্তে সময় দেখার ছুতায় ঘড়িটি বের করে দেখে।

ডেলার লম্বা চুলগুলো চকচকে ঢেউ তোলা পাহাড়ি ঝর্ণার জলের মতো মনে হল। চুলগুলো একদম হাঁটুর নীচ পর্যন্ত লম্বা অনেকটা তার জামার মত লাগছে। ডেলা চুলগুলো এবার যত্ন করে খোঁপা বাঁধলো। আহত মনে মিনিটখানেক কিছু ভাবল ডেলা, তারপরই তার চোখ থেকে দু এক ফোটা পানি গড়িয়ে পড়ে পুরনো কার্পেটকে ভিজিয়ে দিল।

ডেলা এবার পুরাতন বাদামি জ্যাকেট গায়ে দিল, সাথে পুরাতন বাদামি হ্যাট; সাথে তার উজ্জ্বল চকচকে চোখের মত একটি গোলাকৃতির জামা পরলো। ডেলা দ্রুত বেগে ঘর থেকে বের হয়ে বাড়ির সামনের বড় রাস্তায় গিয়ে উঠল।

হাটতে হাটতে হঠাৎ একটি সাইনবোর্ড দেখে ডেলা থমকে দাঁড়ালো, তাতে লেখা 'Mme  Sofronie' ডেলা দৌড়ে এক নিঃশ্বাসে দোকানে ভেতরে ঢুঁকে পড়লো।

'
তুমি কি আমার চুল কিনবে?' ডেলা জিজ্ঞেস করলো।

হ্যা,আমি চুল কিনি', ম্যাডাম বললেন'তোমার মাথায় টুপিটি খোল, আর আগে তোমার চুলতো দেখতে দাও'

বিশ ডলার

কোন কিছু না ভেবেই রাজি হয়ে গেল ডেলা। বলল, ঠিক আছে জলদি দেন, প্লীজ।

ওহ! এর পরের দুই ঘন্টা ডেলার একরকম ঘোরের মধ্যেই চলে গেলো, অনেকটা ডানাকাটা পরীর মত; ডেলা জিমের জন্য পুরো শহরে তন্ন তন্ন করে পছন্দের উপহারটি খুঁজতে লাগল।
অবশেষে সে এটা খুজে পেল'
ডেলা চিন্তা করলো, এটি সত্যিকার অর্থেই শুধু জিমের জন্য তৈরী হয়েছে, অন্য কারো জন্য নয়। এমন সুন্দর জিনিস আর কোন দোকানে ছিল না, ডেলা এটি বের করে নিয়ে আসলো। এটি একটি প্লাটিনামের তৈরী শিকল; খুব সুন্দর ও খাঁটি প্লাটিনাম দিয়ে তৈরী। এমনকি এটি তার ঘড়ির চেয়েও বেশি দামী হতে পারে। তবে এটির শৈল্পিক কোন মূল্য নেই। শিকলটি দেখার সাথে সাথে তার পছন্দ হয়ে যায় এবং মনে মনে ধরেই নিয়েছে এটি অবশ্যই জিমের ঘড়ির জন্যই উপযুক্ত হবে।

দাম পড়ল ২১ ডলার, বাকি ৮৭ সেন্ট নিয়ে ডেলা বাড়ির দিকে ছুটলো।

জিম নিশ্চয়ই এটি ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবে এবং অনেক খুশি হবে। তাকে আর ঘড়ির জন্যে পুরাতন চামড়ার বেল্ট লাগাতে হবে না।' ফেরার পথে ভাবলো ডেলা।

ডেলা যখন বাড়ি ফিরে এলো, তখন তার সকল দুশ্চিন্তা দূর হয়ে গেল। সে চুলায় আগুন জ্বালালো। এটা অনেকটা ভালবাসার ক্ষতে প্রলেপ দেওয়ার মতো একটি মহৎ কর্ম যা ভালবাসাকে নতুন করে জাগিয়ে তোলেএটি সব সময়  কঠিন কাজ - একটি বিরাট কাজ।
৪০ মিনিটের মধ্যে তার মাথাটি ছোট ছোট কোকড়া চুলে ঢেকে গেলে; দেখে অনেকটা স্কুল পালানো বালকের মতো লাগলো। ডেলা সতর্ক দৃষ্টিতে ঘরের লম্বা আয়নার দিকে তাকালো।

বাকী অংশ পড়তে এখানে ক্লিক করুন

No comments:

Post a Comment

Trending