Total Pageviews

Monday, September 9, 2019

Volpone (The Fox) - Ben Jonson - Translation in Bangla - Act - 1 - Scene - 1-2-3

Volpone (The Fox) - Ben Jonson - Translation in Bangla - Act - 1 - Scene - 1-2-3


Volpone (The Fox) - Ben Jonson - Translation in Bangla


চরিত্রলিপি
ভলপোনি(শেয়াল), অভিজাত সম্ভ্রান্ত বংশীয়
ভলটোর (শকুনি), একজন আইনজীবী
মসকা(পরজীবী), ভলপোনের চাকর ভৃত্য
করবাসসিও(দাঁড়কাক), বৃদ্ধ ভদ্রলোক
করভিনো(কাক), বণিক
সিলিয়া (পবিত্রা নারী), করভিনোর স্ত্রী
স্যার পলিটিক উড্-বী (কাঠের মাছি), নাইট
লেডি উড্-বী(মাছি), নাইটের স্ত্রী
পেরিগ্রীন, ভ্রমণকারী
বোনারিও, তরুণ ভদ্রলোক, করবাসসিওর পুত্র
এ্যান্ড্রোজিনো, উভলিঙ্গ ব্যক্তি
ন্যানো, বামন ব্যাক্তি
ক্যাসট্রোন, খোজা ব্যাক্তি
চারজন ম্যাজিস্ট্রেট
রেজিস্টার
কর্মকর্তাবৃন্দ
তিনজন বণিক
ভৃত্য
জনগণ
  
সূচনা
সন্তানবিহীন, ধনী, অসুস্থতার ভানকারী ভলপোনি আশাহীন এক জীবন যাপন করে চলেছেন তিনি তিনি কয়েকজন ব্যাক্তিকে আশা দিয়ে রেখেছেন, তার সম্পত্তির উত্তরাধিকারী করার ব্যাপারে। তার স্বাস্থএর অবনতির কারনে শয্যাশায়ী অবস্থায় তার পরজীবী চাটুকার সবার কাছ থেকেই উপহার গ্রহণ করছে, প্রত্যেককে নিশ্চয়তা দিচ্ছে আর সবাইকে প্রতারিত করছে তারপর তিনি পাল্টা অভিসন্ধি উদ্ভাবন করেছেন, যা তাদের সবার আসল চেহারাটি সকলের কাছে প্রকাশ করে দিয়েছে তারা নতুন নতুন বুদ্ধি বের করে আর সফলও হয় তারা কিন্তু অবশেষে তারা সকলেই আইনের কাছে ধরা পরে যায় এবং কঠিন শাস্তি হয়
প্রথম অঙ্ক, প্রথম দৃশ্য
(ভলপোনির ঘর)
(ভলপোনিঃ মসকার প্রবেশ)
ভলপোনিঃ শুভ সকাল দিনকে এবং সুপ্রভাত আমার সোনাকে মসকা, আমার পুজার বেদি খোল, যাতে করে আমার পরম পূজনীয় সন্তুকে( ধন-রত্ন ও মূল্যবান সম্পদকে) তাকে দেখতে পাই (মসকা পর্দা সরিয়ে দেয়ায় সোনার স্তুপ, সোনা রূপোর তৈজসপত্র, থালা, রত্নরাজি ইত্যাদি দৃশ্যমান হলো)
স্বাগতম হে পৃথিবীর আত্মা, আমার আত্মা জীর্ণ - শীর্ণ পৃথিবী যেমন বসন্তের শুরুতে উজ্জ্বল সূর্যকে দেখে আনন্দ অনুভব করে যখন সে বসন্তে যোডিয়াক-এর প্রথম রাশিকে অতিক্রম করে আমিও তোমাদেরকে দেখে তেমন আনন্দ অনুভব করি। আর আমি আরো বেশী আনন্দিত হয়েছি এটা দেখে যে তোমার ঔজ্জ্বল্য সূর্যের ঔজ্জ্বল্যকে ম্লান করে দিয়েছে আমার অন্যসব স্তুপীকৃত সম্পদের মধ্যে শুয়ে থেকে, তুমি, আমার সোনা, রাতের প্রজ্জ্বলিত শিখার মতে জ্বলো, আর তোমার ঔজ্জ্বল্যের সঙ্গে তুলনা করা যায় সেই দিনের যা পিণ্ডাবস্থা থেকে সৃষ্ট আর যেদিন সমস্ত অন্ধকার পৃথিবীর কেন্দ্রে গিয়ে লুকিয়েছিলো হে, তুমি সলের পুত্র (যদিও পিতার চেয়ে উজ্জ্বল), তোমাকে পূজনীয় হিসেবে চুম্বন করতে দাও আর একই রকম শ্রদ্ধাসহ চুম্বন করতে দাও এই কক্ষে আমার পবিত্র সম্পদের প্রতিটি বস্তুকে মানুষের ইতিহাসের আনন্দময় সময়কে জ্ঞানী কবিরা যে সোনালী হিসেবে বর্ণনা করেছেন আর তোমার সঙ্গে তুলনা করেছেন, তা খুবই যুক্তিসঙ্গত হয়েছে তুমি সর্বশ্রেষ্ঠ, এবং শিশুদের চেয়ে, অভিভাবকদের চেয়ে, বন্ধুদের চেয়ে, পৃথিবীর যে কোন জেগে দেখা স্বপ্নের চেয়ে আনন্দের শ্রেয়ঃতর উৎস যখন তারা ভেনাসের সোনালী দৃষ্টির বর্ণনা করেন, তাদের বলা উচিত যে ভেনাস কেবল একজন কিউপিডের মা নন, বরং বিশ হাজার কিউপিডের মা, এতোটাই তীব্র তোমার আকর্ষণ এবং তোমার জন্য আমাদের ভালোবাসা প্রিয় সাধু, তোমার তুলনা হতে পারে এমন বোবা দেবতার সঙ্গে, যে মানুষকে কথা বলার ক্ষমতা দিতে পারবে তুমি নিজে কিছুই করতে পারো না, যদিও তুমি মানুষকে দিয়ে সব ধরনের কাজ করাতেই সমর্থ তোমার দ্বারা মানুষের আত্মা কিনে নেয়া যায় জাহান্নামেও যদি তোমার সান্নিধ্য লাভ করা যায়, তখন যেন জান্নাতের আনন্দ উপভোগ করা যায় তুমি গুণ, খ্যাতি, সম্মান এবং অন্য সব কিছুরই একটা উৎস যে তোমাকে লাভ করে, তাকে মহান, সৎ, জ্ঞানী বলে গণ্য করা হয়
মসকাঃ আর ধরনের মানুষ যেমন চায় তেমন খ্যাতিই পেতে পারে প্রকৃতির কাছ থেকে যে ব্যক্তি জ্ঞানের আশীর্বাদ লাভ করে তার চাইতে অনেক বেশী আশীর্বাদ লাভ করে সে যে সম্পদ অর্জন করে
ভলপোনিঃ তুমি যথার্থই বলেছো, প্রিয় মসকা এইসব সম্পদের অধিকারী হবার আনন্দের চাইতে যে সূক্ষ উপায়ে আমি এইসব অর্জন করেছি তাতে আমি আহ্লাদিত হই আরো বেশী কারণ এইসব সম্পদ কোনো সাধারণ উপায়ে আমি অর্জন করিনি আমি কোনো বাণিজ্য করিনি আমি কোনো বিনিয়োগ করিনি শস্য উৎপাদনের জন্য আমি কোনো জমি কর্ষণ করিনি কসাইখানায় বিক্রি করার জন্য আমি কোনো পশু পালন করিনি ইস্পাত, তেল, শস্য ইত্যাদির কোনো কারখানা আমি স্থাপন করিনি অথবা টাকা বানাবার জন্য কোন শ্রমিককে ব্যবহার করিনি গলিত কাঁচে বাতাস প্রবাহিত করে কোন কিছু আমি তৈরী করিনি- যে কাজটি করবার জন্য যথেষ্ট দক্ষতার প্রয়োজন সমুদ্রের ঝঞ্জা ঢেউয়ের বিপদের মুখোমুখি হবার জন্য আমি কোনো জাহাজ পাঠাইনি টাকা বাড়াবার জন্য আমি ব্যাংকে কোনো টাকা জমাইনি অতিরিক্ত সুদ পাবার জন্য আমি গোপনে কোনো টাকা ধার দেইনি
মসকাঃ জ্বী না, স্যার অলস অমিতব্যয়ীদের সম্পদও আপনি হরণ করেননি আপনি এমন লোকও খুঁজে পাবেন যারা একজন তরুণকে প্রতারিত করে যে কিনা সবেমাত্র সম্পদের অধিকারী হয়েছে, আর প্রতারণা করে খুব সহজেই যেভাবে ডাচরা মাখনের স্থূপ গলাধঃকরণ করে, যদিও তাদের পেটের কোনো অসুখ হয় না তারা দরিদ্র পরিবারের পিতাকে বিছানা থেকে সবেগে টেনে নামায় এবং জেলখানার সঙ্কীর্ণ কক্ষে ছুঁড়ে ফেলে যেখানে তাদের শরীর পচতে থাকে যতোক্ষণ পর্যন্ত না হাড়গুলো বেরিয়ে আসে কিন্তু আপনার স্বভাব এতোই মধুর যা কিনা এইসব উপায়ে অর্থ উপার্জন করতে ঘৃণাবোধ করে বিধবা বা এতিমের চোখের জলে বিধৌত হবে আপনার চত্বর, বা তাদের করুণ বিলাপ ধ্বনি আপনার ছাদকে আঘাত করবে আর বাতাসকে প্রতিশোধ স্পৃহায় আঘাত করবে- সব কিছুকেই আপনি ঘৃণা করেন
ভলপোনিঃ তুমি ঠিকই বলেছ, আমি ধরনের কাজকে ঘৃণা করি
মসকাঃ আর, স্যার, আপনি কোনো মাড়াইকারীর মতো নন যে বিশাল কাস্তে হাতে শস্যের স্তুপের দিকে তাকিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে, এবং ক্ষুধার্ত হলেও সামান্য শস্যকণা খাবার সাহসও সে করেনা, বরং লতা-পাতা আর কটু গুল্ম দ্বারা সে তার ক্ষুধা মেটায় আপনি সেই বণিকের মতোও নন, যার মদ্যভাণ্ডার দামী রোমানীয়ান ক্যানাডিয়ান মদ দ্বারা পূর্ণ থাকে, যদিও সে লম্বার্ডির সস্তা এবং বাজে মদ পান করে আপনি খড়ের বিছানায় শয়ন করেন না, যখন প্রজাপতি আর পোকা মাকড়েরা আপনার বিলাসবহুল নরম শয্যা এবং পর্দা ভক্ষণ করবে কিভাবে সম্পদ ব্যবহার করতে হয়, তা আপনি জানেন আপনার উজ্জ্বল ধনরাজি থেকে দান করবার স্পৃহা আপনার রয়েছে, কিছু অংশ আমাকে, আপনার অনুগত ভৃত্যকে, অথবা আপনার বামনকে, অথবা আপনার উভলিঙ্গ প্রাণীকে অথবা আপনার খোজাকে, অথবা অন্য যে কাউকে যাকে চাকরিতে নিয়োজিত করেছেন-
ভলপোনিঃ দাঁড়াও, মসকা তুমি নিজে কোনো কিছু নিও না আমার নিজের হাতে তোমাকে কিছু দিতে দাও (টাকা দিলেন) সব ব্যাপারেই তুমি সত্যের ওপর আঘাত করো যারা তোমাকে ঈর্ষা করে, তারা তোমাকে পরজীবী বলে ডাকে আমার বামন, আমার খোজা আর আমার ভাঁড়কে পাঠিয়ে দাও আর আমোদ-প্রমোদের ব্যবস্থা করতে বলো (মসকার প্রস্থান) আমার কি করা উচিত? আমার মনের সহজাত বোধকে অনুসরণ করা এবং সহজ সরলভাবে জীবন যাপন করা উচিত যাতে করে ভবিষ্যত আমাকে যেসব আনন্দের আমন্ত্রণ জানাচ্ছে, সেসব উপভোগ করতে পারি? আমার স্ত্রী নেই, অভিভাবক নেই, সন্তান নেই, আত্মীয় নেই যাকে আমি আমার সম্পত্তি দান করে যেতে পারি আমি নিজে যাকে নির্বাচিত করবো, সেই আমার সম্পত্তির উত্তরাধিকারী হবে কারণেই মানুষ আমার সামনে নমিত হয়ে থাকে কারণেই নতুন প্রার্থীরা প্রতিদিন আমার বাড়ির প্রতি আকৃষ্ট হচ্ছে সব বয়সের মহিলা এবং পুরুষ আমার জন্য উপহার নিয়ে আসে, সোনা-রুপার তৈজসপত্র পাঠায়, মুদ্রা, রত্ন পাঠায়, লোভীর মতো আশা করে থাকে সেই সময়ের জন্য যখন আমি মৃত্যুবরণ করবো (যা তারা প্রতি মুহূর্তে আশা করছে) তখন তারা আমাকে যা দিয়েছে, তার দশগুণ ফেরত পাবে কেউ কেউ আছে যারা অন্যদের চেয়ে আরো বেশী লোভী, তারা কেবলমাত্র উইলে প্রাপ্ত সম্পত্তি আশা করে না, বরং একক উত্তরাধিকার চায়, আর সেই উদ্দেশ্যে অন্যদের সরিয়ে দেবার অভিসন্ধি করে তারা আমাকে উপহার পাঠাবার জন্য একজন অন্যজনের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে, আর তারা ভান করে যেন ওসব তাদের ভালোবাসার স্মারক এসব কিছুই আমি পর্যবেক্ষণ করি, আর তাদের মনে মিথ্যা আশা জাগিয়ে রাখি, আর তাদের আশাকে আমার লাভে পরিণত করে আমি আনন্দিত হই আমি তাদের দানশীলতার দিকে তাকিয়ে থাকি, তখনও তাদেরকে আমি পরিচালিত করি, চেরীফলকে তাদের ঠোট স্পর্শ করার সুযোগ দেই, তাদের মুখের ভেতর প্রায় ঢুকিয়ে দেই, আর আবার সেটাকে পেছনে ফিরিয়ে আনি এখন কি ঘটতে যাচ্ছে?

প্রথম অংক, দ্বিতীয় দৃশ্য
(ন্যানো, এ্যান্ড্রোজিনো, ক্যাসট্রোন, ভলপোনি এবং মসকার প্রবেশ)
ন্যানোঃ এখন নতুন খেলোয়াড়দের জন্য জায়গা ছেড়ে দাও যারা তোমাদের জানাতে চাইছে যে এই আমোদ-প্রমোদ ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা এবং গণমঞ্চে পরিবেশিত নাটকের ক্ষেত্রে কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ের, ছাত্রদের কোনো বুদ্ধিদীপ্ত পরিবেশনার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নাটকের মানদণ্ড দ্বারা এটি মূল্যায়িত হবে না অভিনেতারা নমিত হয়ে বলেছে যে আমোদ প্রমোদ হিসেবে তারা যা পরিবেশন করছে তা গ্রহণীয় হতে হবে এবং অনুমোদিত হতে হবে, যদিও যে পদ্য তারা পাঠ করবে তা অনিয়মিত হয় এবং নিয়ম নীতির সংগে সামঞ্জস্যপূর্ণ না হয়, তবুও যদি আপনি এতে বিস্মিত হন, আপনি আরো বেশি বিস্মিত হবেন তখন যখন আমরা প্রস্থান করবো, কারণ আপনার জানা উচিত যে এখানে, এই ভাড়ের শরীরে ( এ্যান্ড্রোজিনোর, প্রতি নির্দেশ করে) পীথাগোরাসের আত্মা লুকিয়ে রয়েছে, যিনি ছিলেন বিস্ময়কর ধোকাবাজ, যাকে পর্যায়ক্রমে ব্যাখ্যা করা হবে সেই আত্মা, স্যার, মেলায় জুয়াড়িদের ধোকা দিতে যে পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়, সেটাই ব্যবহার করে এটা আসলে এ্যাপোলোর কাছ থেকেই এসেছে, তারপর এথাইলাইডসের দেহে প্রবেশ করানো হয়েছে, যে কিনা মারকারির পুত্র জীবনের এবং মৃত্যুর পরের জীবনের সব কিছু স্মরণ করার আশীর্বাদপুষ্ট আত্মা ছিল সেই দেহে যেখান থেকে সেটি বেগে ধাবিত হয়ে বেরিয়ে এসে দ্রুত অন্য দেহে প্রবেশ করেছে, সোনালী চুলের ইউফোরবাস-এর দেহে, প্রাচীন ট্রয় নগরী অবরোধ করার সময় যিনি মেনেলাসের হাতে মৃত্যুবরণ করেছেন সেই মেনেলাস, যিনি ছিলেন স্পার্টার রাজা, যার স্ত্রী প্যারিস (ট্রয়ের রাজপুত্র) কর্তৃক অপহৃত হয়েছিল এরপর যার দেহ এটি অতিক্রম করেছিল, আমার রেকর্ড বলছে, সে ছিলো হারমোটিমাস যখন এটি সেই দেহ ত্যাগ করেছিল, তখন এটা একজন জেলের দেহ পেয়েছিল, যার নাম ছিল ডেলোসের পীরহাস আর সেখান থেকে এটি প্রাজ্ঞ গ্রীক দার্শনিক পীথাগোরাসের দেহে প্রবেশ করেছিল পীথাগোরাসের দেহ থেকে এই আত্মাটি আসপাসিয়ার সুন্দর দেহে প্রবেশ করেছিল, যে ছিল একজন বারবণিতা আত্মাটি এরপর বারবণিতার দেহ থেকে বেরিয়ে আসে এবং পুনরায় একজন দার্শনিকের দেহে প্রবেশ করে, যিনি হলেন থীবস এর ক্রেটেস, নিন্দুক দার্শনিক তারপর থেকে আত্মাটি প্রবিষ্ট হয়েছে রাজাদের দেহে, নাইটদের দেহে, পশুদের দেহেও, যেমন ষাড়, গাধা, উট, খচ্চর, ছাগল,ব্যাজার ইত্যাদি সবার ভেতরে এটা তেমন করে কথা বলেছে, যেমন করে লুসিয়ানের ডায়ালগ- মোরগটি মুচির সঙ্গে কথা বলেছে কিন্তু আমি এখানে ব্যাপারে কথা বলতে আসিনি, অথবা পীথাগোরাসের থিওরি সম্পর্কে কথা বলতে আসিনি, যে থিওরি কোনো জিনিসের প্রকৃতিকে সংখ্যাক্রম-এক, দুই, তিন অনুসারে ব্যাখ্যা করে থাকে আমি সহজ সূত্র ডায়াগ্রাম সম্পর্কে কিছু বলবো না যার দ্বারা পীথাগোরিয়ানরা শপথ নিতো এবং বিদেশী ভূমিতে এক অন্যকে চিনতে পারত সামঞ্জস্য, ত্রিভুজ, সোনালী থাই সংক্রান্ত পীথাগোরাসের নিয়ম অথবা পদার্থ কিভাবে পরিবর্তিত হয় সম্পর্কে পীথাগোরাসের ব্যাখ্যা নিয়েও আমি কোন কথা বলব না কিন্তু আমি এই ভড়কে (এ্যান্ড্রোজিনো) জিজ্ঞেস করব কিভাবে তার আত্মা সাম্প্রতিককালে রূপান্তরের পর্যায় অতিক্রম করে এবং প্রোটেস্ট্যান্ট সংস্কারের সময়ে এর দেহ পরিবর্তিত করেছিল
এ্যাড্রোজিনোঃ এই পরিবর্তনটা ঠিক সেই পরিবর্তনের মতোই যা সেই ব্যক্তির মধ্যে দেখা যায় যে পিউরিটানে পরিণত হয়েছে, বা বোকায় পরিণত হয়েছে, আর তুমি দেখছো যে সে সব অর্থোডক্স বিশ্বাসকে বিদ্রোহী হিসেবে এবং মিথ্যে হিসেবে প্রত্যাখ্যান করেছে
ন্যানোঃ কিন্তু আমি আশা করি যে তুমি তোমার নিজস্ব নিয়ম অগ্রাহ্য করবে না আর মাছ শিম খেতে আরম্ভ করবে পীথাগোরিয়ানদের জন্য যা খাওয়া নিষিদ্ধ ছিল
এ্যান্ড্রোজিনোঃ আমি মাছ খেয়েছিলাম তখন যখন আমার আত্মা এমন এক ধর্মীয় গোত্রের সদস্যের দেহে প্রবেশ করেছিল যার খাদ্যাভ্যাস কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রিত এবং সীমাবদ্ধ ছিল
ন্যানোঃ আচ্ছা, তারপর তুমি কি নীরবতাকে পরিত্যাগ করেছে যা পীথাগোরিয়ানরা পাঁচ বছর সময়ের জন্য অনুসরণ করতে বাধ্য ছিল?
এ্যান্ড্রোজিনোঃ হ্যা, একজন বাগ্মী আইনজ্ঞ আমার কাছ থেকে সেটা নিয়ে গিয়েছিলেন
ন্যানোঃ ওহ! চমৎকার রূপান্তর যখন তোমার আত্মা পর্যায়ক্রমে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে সম্মানিত আইনজ্ঞের দেহ থেকে, পীথাগোরাসের স্থানান্তরের নিয়ম অনুসরণ করতে গেলে এটা কি আকৃতি ধারণ করবে?
এ্যান্ড্রোজিনোঃ একটি ভালো, নিকৃষ্ট খচ্চরের আকৃতি
ন্যানোঃ তাই কি? এটাই কি সেই কারণ যে জন্য তুমি শিম খাবার অনুমতি পেয়েছো?
এ্যান্ড্রোজিনোঃ হ্যা 
ন্যানোঃ কিন্তু তোমার আত্মাটি খচ্চর থেকে কোন আকৃতিতে রূপান্তরিত হয়েছে?
এ্যান্ড্রোজিনোঃ একটি অদ্ভুত পশুতে যাকে কোনো কোনো লেখক গাধা বলে ডেকে থাকেন অন্যান্য লেখকরা এই পশুটিকে পিউরিটান ভাই হিসেবে ডাকে যে তার গোত্রের নিয়মগুলো কঠোরভাবে অনুসরণ করে, সব ধরনের আমোদ-প্রমোদ পরিহার করে চলে, এবং ধর্মীয় সত্যের আলো দেখার দাবী করে থাকে এই পিউরিটানরা শুকরের মাংসের মহাভক্ষক, এবং কখনো কখনো তারা একজন অন্যজনকেও ভক্ষণ করে থাকে তারা তাদের ক্রীসমাসের পিঠের প্রত্যেকটি চামচ মুখে নেবার পর একটি অপমানজনক মন্তব্য করবে বা পবিত্র মিথ্যে উচ্চারণ করবে
ন্যানোঃ ঈশ্বরের দোহাই, চুপ করো না হয় পিউরিটানদের পৃথিবীসর্বস্ব গোত্র থেকে বেরিয়ে যাও, এবং শান্তভাবে বলে কোনটি তোমার পরবর্তী শরীর যেখানে তোমার আত্মা প্রবেশ করেছিলো
এ্যাড্রোজিনোঃ এরপর আমার আত্মা বর্তমান শরীরটিতে আশ্রয় গ্রহণ করেছিল, ভাঁড়ের শরীরে
ন্যানোঃ একজন ভাড় একটি আনন্দময় সৃষ্টি কিন্তু তুমি ভাড়েরও বাড়া, তুমি আবার উভলিঙ্গও বটে এখন বলো, প্রিয় আত্মা, এই সব রূপান্তরের মধ্যে স্থিত হবার জন্যে কোন শরীরটি তুমি বেছে নেবে?
এ্যাড্রোজিনোঃ সত্যি বলতে কি, আমি আমার বর্তমান শরীরটিকেই পছন্দ করব, এবং এর মধ্যে থাকতেই আমি পছন্দ করবো
ন্যানোঃ এর কারণটা হলো, তোমার এই শরীরটিতে তুমি উভলিঙ্গের আনন্দ অনুভব করবে এবং এভাবে বৈচিত্র্য অনুভব করবে?
এ্যান্ড্রোজিনোঃ হায়, ওসব আনন্দ আর রোমাঞ্চিত করতে পারে না ওসব বাদ না, এটা হলো ভাড়ের চরিত্র যা আমাকে এতো বেশি আকৃষ্ট করে ভাঁড় হচ্ছে একমাত্র চরিত্র যাকে আমি আনন্দজনক বলে মনে করি অন্য সব আকৃতি এবং চরিত্র যেগুলোকে আমার অভিজ্ঞতায় আমি পেয়েছিলাম, সেগুলো ছিল ভীষণ অসুখী
ন্যানোঃ তুমি সত্যি কথাই বলেছে, যেন তুমি এখনো পীথাগোরাসের শরীরে আছে বন্ধুবর খোজা (ক্যাসট্রোন), এই বুদ্ধিদীপ্ত মতামতকে আমাদের বুদ্ধি এবং শিল্পবোধ অভিনন্দন জানাচ্ছে, যাতে করে যেটাতে আমাদের অনেক বড় আর বিশেষ অংশ রয়েছে সেটাকে মর্যাদা দিতে পারি
ভলপোনিঃ বেশ, বেশ, এতো খুবই চমৎকার পরিবেশনা মসকা, তুমিই কি এসব উদ্ভাবন করেছো?
মসকাঃ হ্যা, যদি এটা আপনাকে সন্তুষ্ট করে, প্রভু আমার, আর তা না হলে এটা আমার মস্তিষ্ক দ্বারা উদ্ভাবিত নয়
ভলপোনিঃ এটা আমাকে আনন্দ দিয়েছে, প্রিয় মসকা
মসকাঃ তাহলে এটা আমারই উদ্ভাবিত
।। সঙ্গীত ।।
ভড়েরাই হলো একমাত্র জাতি
যারা পায় ঈর্ষা খ্যাতি
তাদের নেই চিন্তা আর দুঃখ কোনো
তারা নিজেরা সুখী, অপরকেও সুখী রাখে জেনো
তারা যা বলে বা করে তা- সর্বোত্তম
তোমার ভাঁড় হচ্ছে এক মহান ব্যক্তির প্রিয়তম,
সে তোমাদের স্ত্রীদের আনন্দ করে দান,
তার জিহবা ছড়ি তার কাছে মহামূল্যবান।।
তার মুখখানিও হাসির খোরাক জোগায়,
সে সত্যি কথা বলে কোনো ফাসির ভয় ছাড়াই
সে প্রত্যেক ভোজোৎসবেই আর্শীবাদ ছড়ায়
আর কখনো প্রধান অতিথিও হয়
ভাঁড়কে নৈশভোজের থালা টুল দেয়া হয়
যখন সে তার বোধ-বুদ্ধির পরিচয় দেয়
ওহ, সে নয় কে
কে, কে, কে?
(বাইরে কারো কড়া নাড়ার শব্দ)
ভলপোনিঃ কে ওখানে কড়া নাড়ছে? যাও, মসকা, কে এসেছে, দেখো
মসকাঃ ভাঁড়, এখান থেকে যাও (এ্যান্ড্রোজিনোর প্রস্থান) ইনি হলেন উকিল সিনর ভলটোর তার কড়া নাড়ার শব্দ শুনেই আমি তাকে চিনতে পারছি
ভলপোনিঃ আমার গাউনটা নিয়ে এসো, আমার গরম কাপড়, আর আমার নৈশটুপিগুলোও তাকে বলো যে আমার শয্যার পোশাক পাল্টাচ্ছি তাকে গ্যালারিতে কিছুক্ষণের জন্য অপেক্ষা করতে বলো (মসকার প্রস্থান) এখন আমার দর্শনপ্রার্থীগণ দর্শন দিতে শুরু করেছেন শকুন, চিল, দাঁড়কাক, গলিত মাংসভোজী কাক-সবগুলো শিকারী পাখী ভাবছে যে আমি খুব তাড়াতাড়ি মৃতদেহে পরিণত হব, এখন এসেছে আমাকে ঠুকরে ঠুকরে খেতে কিন্তু আমি এখনো তাদের জন্য নই (মসকার প্রবেশ গাউন অন্যান্য জিনিসপত্রসহ)
ভলপোনিঃ এখন কি অবস্থা? কি খবর?
মসকাঃ উনি একখানা থালা এনেছেন, স্যার
ভলপোনিঃ আকৃতি কেমন?
মসকাঃ বিশাল, ভারী আর প্রাচীন আমলের কারুকার্যমণ্ডিত আপনার নাম এতে অঙ্কিত করা আছে আর আপনার বাহু দুটো তাতে খোদাই করা আছে
ভলপোনিঃ তা বেশ তা থালাখানায় কি একটি শেয়ালকে খোদাই করা হয়নি, যে শেয়ালটি মাটিতে দাঁড়িয়ে হাঁ করা মুখে কাক নিয়ে চমৎকার চালাকি খাটিয়ে মজা করছে তুমি কি বলো মসকা?
মসকাঃ আপনি নিঃসন্দেহে বুদ্ধিমান, স্যার
ভলপোনিঃ আমার পশমী পোশাক দাও (তার অসুস্থতা প্রদর্শক পোশাক পরিধান করলেন) মসকা, তুমি এতো হাসছো কেন?
মসকাঃ আমি না হেসে পারছি না, স্যার, যখনই আমি কল্পনা করছি আপনার দর্শন-প্রার্থীর মনে কি চিন্তা সাঁতার কাটছে যিনি এখন বাইরে ওদিক ওদিক পায়চারী করছেন সম্ভবত তিনি ভাবছেন যে এটিই হয়তোবা শেষ উপহার যেটি তিনি আপনাকে উপহার দিচ্ছেন, যে এটিই হয়তো শেষতক তাকে আপনার উত্তরাধিকারী করতে আপনাকে প্ররোচিত করবে, যে আপনি যদি আজ মারা যান তাকে আপনার সমস্ত সম্পত্তি দান করে, তিনি আগামীকাল খুব ধনবান ব্যক্তি হয়ে উঠতে পারেন তিনি নিশ্চয়ই ভাবছেন য়ে তার বিনিয়োগ, যেগুলো তিনি উপহার হিসেবে আপনাকে দিয়েছেন, সেগুলো তার জন্য বিরাট প্রতিদান বয়ে নিয়ে আসবে তিনি নিঃসন্দেহে ভাবছেন কিভাবে তিনি পূজনীয় এবং সম্মানিত হবেন, কিভাবে তিনি পশমী পোশাক পরে ঘোড়ায় চড়বেন এবং তার ধনপ্রাচুর্য নির্দেশক বিশাল বস্ত্রখণ্ড তার ঘোড়ার জিনের ওপর বিস্তৃত থাকবে কিভাবে ভাঁড় এবং প্রার্থীরা যারা তার অনুগ্রহ প্রার্থনা করবে তারা ভিড় করে তার সামনে হাজির হবে, কিভাবে খচ্চরের জন্য লোকজন পথ তৈরী করবে যেটি তার নিজের মতোই শিক্ষিত, কিভাবে তাকে ভক্তি এবং শিক্ষিত উকিল বলে ডাকা হবে তিনি নিশ্চিতভাবেই এসব কিছু নিয়েই চিন্তা করছেন এবং এই উপসংহারে এসেছেন যে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়
ভলপোনিঃ হ্যা, মসকা, জ্ঞানী বলে বিবেচিত হওয়াটা সম্ভব কিছু নয়
মসকাঃ ওহ, না, যে ধনবান সে স্বাভাবিকভাবেই জ্ঞানী হিসেবে বিবেচিত হবে যদি একটি গাধা তার লম্বা কান দুটো যে দুটোকে মনে হয় যেন বাতাসে উড়ছে সে দুটোকে লুকোতে সম্মানজনক বেগুনী বোরখা পরে, তবে গাধাকে খুব সহজেই ভুলক্রমে ক্যাথেড্রালের প্রধান জ্ঞানী ব্যক্তি হিসেবে ভাবা হতে পারে
ভলপোনিঃ তাড়াতাড়ি করো, প্রিয় মসকা, আমার টুপিটা এনে দাও, তারপর উকিলকে ভেতর আসতে বলো
মসকাঃ  অপেক্ষা করুন, স্যার আপনার চোখে মলম লাগাতে হবে
ভলপোনিঃ হ্যা তাড়াতাড়ি করো, তাড়াতাড়ি করো যে নতুন উপহারটি আমার জন্য আনা হয়েছে সেটা পাবার জন্য আমি আকুল হয়ে আছি
মসকাঃ সেই উপহার, আর ওটার মতো হাজারটা, আশা করি, আপনার অধিকারে আসবে
ভলপোনিঃ ধন্যবাদ, দয়ালু মসকা
মসকাঃ শুধু তাই নয় যখন আমি মারা যাবো এবং আমার মৃতদেহ ধূলোর সঙ্গে মিশে যাবে এবং আরো শতশত জন, যারা আমার মতোই পরজীবী হিসেবে আসবে, তারাও মারা যাবে, তখনও আপনি উপহার গ্রহণ করতেই থাকবেন
ভলপোনিঃ না, মসকা, এভাবে কথা বলে আমাকে উদ্বেল কোরোনা
মসকাঃ এই সব লোভী এবং নিষ্ঠুর লোকদের বোকা বানাতে আপনি দীর্ঘ সময় ধরে বেঁচে থাকবেন
ভলপোনিঃ প্রিয় মসকা ঠিক বলেছো এখন আমাকে একটা বালিশ দাও, আর তাকে আসতে বলো (মসকার প্রস্থান) এখন যেসব অসুখে ভুগছি বলে আমি ভান করছি-কাশি, যক্ষ্মা, বাত, সন্ন্যাস রোগ, পক্ষাঘাত আর সর্দি-এগুলো আমাকে ভান করতে সাহায্য করছে গত তিন বছরে আমি এদেরকে আমার উত্তরাধিকারী হিসেবে মনোনীত করার আশা দিয়ে এদের কাছ থেকে উপহার আদায় করে নিয়েছি তিনি আসছেন আমি তার পদশব্দ শুনতে পাচ্ছি (তিনি কাশতে শুরু করলেন)
উহ উহ উহ উহ

প্রথম অংক তৃতীয় দৃশ্য
(মসকা এবং ভলটোরের প্রবেশ)
মসকাঃ (ভলটোরের প্রতি) আগে যেমন ছিলেন, এখনও আপনি তার প্রিয়পাত্রই রয়েছেন, স্যার সবার মধ্যে আপনিই হচ্ছেন একমাত্র ব্যক্তি যিনি তার ভালোবাসা পেয়েছেন আর ঘন ঘন দর্শন দেবার মাধ্যমে এবং উপহার প্রদানের মাধ্যমে তাকে সম্মান প্রদর্শন করে তার ভালোবাসা অর্জন করে আপনি বুদ্ধিমানের মতো কাজ করেছেন, কারণ আমি জানি তিনি তা আনন্দিত চিত্তে গ্রহণ করেছেন (ভলপোনির প্রতি) প্রভু! স্যার! সিনর ভলটোর আপনার সঙ্গে দেখা করতে এসেছেন
ভলপোনিঃ তুমি কি বলছো?
মসকাঃ স্যার, সিনর ভলটোর এই সকালবেলায় আপনার সঙ্গে দেখা করতে এসেছেন
ভলপোনিঃ আমি তার কাছে কৃতজ্ঞ
মসকাঃ আর তিনি একখানা প্রাচীন থালা এনেছেন যা তিনি সেইন্ট মার্কের স্কোয়ারের মার্কেট থেকে কিনেছেন, এবং যা তিনি আপনাকে এখন উপহার হিসেবে প্রদান করেছেন
ভলপোনিঃ তাকে অভ্যর্থনা জানাচ্ছি তাকে আরো ঘন ঘন আসার জন্য অনুরোধ করো
মসকাঃ হ্যা, আমি তাকে বলবো
ভলটোরঃ (মসকাকে) তিনি কি বললেন?
মসকা (ভলটোরকে) তিনি আপনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন, আর আপনি যেন ঘন ঘন তাকে দেখতে আসেন, তাই তিনি চান
ভলপোনিঃ মসকা
মসকাঃ জ্বী আমার প্রভু, আপনার জন্য আমি কি করতে পারি?
ভলপোনিঃ দর্শনার্থীকে আমার খুব কাছে নিয়ে এসো কোথায় সে? তার হাত স্পর্শ
করার ইচ্ছে হচ্ছে আমার
মসকাঃ এই হচ্ছে সেই থালা যা তিনি এনেছেন, স্যার
ভলটোরঃ আপনি কেমন বোধ করছেন স্যার?
ভলপোনিঃ আপনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি, সিনর ভলটোর থালাটি কোথায়? আমার দুর্বল দৃষ্টিশক্তির জন্য খুব কমই দেখতে পাই
ভলটোরঃ (থালাটি তার হাতে দিয়ে দিলেন) আমি দুঃখিত যে আপনি এখনো খুবই দুর্বল
মসকাঃ (জনান্তিকে) আপনি দুঃখিত হবেন এটা দেখে যে তিনি এখনও দুর্বল নন
ভলপোনিঃ আপনি বড়োই দয়ালু
ভলটোরঃ না, স্যার ঈশ্বরের দয়ায় যদি সম্ভব হতো তাহলে যেভাবে এই থালাটি আমি আপনাকে প্রদান করছি সেভাবে ভালো স্বাস্থ্যও প্রদান করতাম
ভলপোনিঃ আপনার সামর্থ্যের মধ্যে যা দেওয়া সম্ভব আপনি আমাকে তা- দিচ্ছেন, স্যার আমি আপনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি এই থালাটির মাধ্যমেই আমার প্রতি আপনার ভালোবাসা প্রমাণিত হলো, আর এর প্রতিদানও আপনি পাবেন এটা প্রতিদানহীন থাকবে না আমাকে মাঝে মাঝে দেখতে আসার জন্য আপনাকে আমি অনুরোধ জানাচ্ছি
ভলটোরঃ জ্বী, স্যার, আমি তাই করবো
ভলপোনিঃ আমার কাছ থেকে দূরে সরে থাকবেন না
মসকাঃ (ভলটোরকে) আপনার জন্য তার আগ্রহ কততখানি তা কি আপনি লক্ষ্য
করেছেন স্যার?
ভলপোনিঃ আমি আরো কিছু বলবো, শুনুন, এটা আপনার স্বার্থরক্ষা করবে
মসকাঃ (ভলটোরকে) আপনি একজন সুখী মানুষ, স্যার নিজের সুন্দর ভবিষ্যত আপনার চিনে নেয়া উচিত
ভলপোনিঃ আমি আর বেশী দিন বাঁচবো না
মসকাঃ (ভলটোরকে) আপনি ওঁর উত্তরাধিকারী, স্যার
ভলটোরঃ আমি?
ভলপোনিঃ আমি বুঝতে পারছি, মারা যাচ্ছিঃ উহ! উহ! উহ! আমি এখন আমার গন্তব্যের দিকে চলে যাচ্ছি উহ! উহ! উহ! আমি আনন্দিত যেখানে আমি আমার চূড়ান্ত আশ্রয় খুঁজে পাবো তার খুব কাছাকাছি রয়েছি
মসকাঃ হায়, দয়াবান ভভদ্রমহোদয় বেশ, আমরা সবাই অবশ্যই যাবো.............
ভলটোরঃ কিন্তু, মসকা ..........
মসকাঃ একজন মানুষকে অবশ্যই বৃদ্ধ বয়সে উপনীত হতে হবে এবং মৃত্যুবরণ করতে হবে
ভলটোরঃ (মসকাকে) আমার কথা শোনার জন্য আমি সনির্বন্ধ অনুরোধ করছি আমাকে বলো আমি কি কোনো সন্দেহ ছাড়াই তার উত্তরাধিকারী হিসেবে মনোনীত হয়েছি কিনা
মসকাঃ স্যার, আপনার কি কোনো সন্দেহ আছে? আমি বিনম্রভাবে আপনাকে অনুরোধ করছি আপনার পোষ্য হিসেবে আমাকে অন্তর্ভূক্ত করার জন্য আপনার সম্মানের ওপর আমার সমস্ত আশা নির্ভর করছে আপনি যেমন ধনী হতে যাচ্ছেন, আপনি যদি আমাকে কোনোরকম অনুগ্রহ না দেখান, তাহলে আমি হারিয়ে যাবো
ভলটোরঃ আমি নিশ্চিতভাবেই তোমাকে অনুগ্রহ প্রদর্শন করবো, মসকা, এবং তোমাকে সুখী করবো
মসকাঃ স্যার, আমি আপনার শত্রু নই এবং আপনার ভালোবাসার কথাও কোনোদিন বিস্মৃত হবে না যে চাবিগুলো আমি এখন বহন করছি, এগুলো আপনারই এখন আমি এখন রত্নরাজির, তৈজসের এবং টাকার তালিকা বহন করছি আমি আপনার ভৃত্য, স্যার, এবং আমি আপনার সম্পত্তির প্রতি লক্ষ্য রাখছি
ভলটোরঃ কিন্তু আমিই কি এইসব সম্পত্তির একমাত্র উত্তরাধিকারী
মসকাঃ জ্বী স্যার; এতো কোনো ভাগীদার নেই আজ সকালে তার উইল করা হয়েছে দলিলের কালি এখনো শুকোয়নি, এবং যে মোম দিয়ে দলিল সীল করা হয়েছে তা এখনো উষ্ণ রয়েছে
ভলটোরঃ কী সুখী মানুষই না আমি! প্রিয় মসকা, কোন্ অসাধারণ সুযোগে এটা ঘটবে?
মসকাঃ সব কিছুই আপনার নিজের যোগ্যতার কারণে, স্যার, আমি কোনো দ্বিতীয় কারণ জানি না
ভলটোরঃ এটা তোমার ভদ্রতা যে আমার এই উপহার প্রাপ্তির ক্ষেত্রে যে ভূমিকা তুমি পালন করছো সেটা আমাকে বলতে চাইছো না যাই হোক, আমার জন্য যা করছো, সেইজন্য আমি পুরস্কৃত করবো তোমাকে
মসকাঃ আপনার কাজকর্মের কারণে তিনি আপনাকে সব সময়েই পছন্দ করতেন, স্যার এই কারণেই তিনি প্রথমে আপনার প্রতি আকৃষ্ট হয়েছিলেন আমি তাকে প্রায়ই বলতে শুনেছি তিনি আপনার মহান পেশার ব্যক্তিদেরকে কী ভীষণ শ্রদ্ধা করেন যারা কিনা প্রত্যেক ব্যাপারে সমর্থন করতে গিয়ে কথা বলেন, এবং সম্পূর্ণ বিপরীত কথা বলেন যতোক্ষণ পর্যন্ত না তারা ক্লান্ত হন, এবং যদিও তারা দাবী করেন যারা প্রথমে এক পক্ষের হয়ে কথা বলেন, তারপর ত্বরিতবেগে অন্য পক্ষে চলে যান এবং পরবর্তীতে আরেকটি ডিগবাজি খান প্রথমে জটিলতা সৃষ্টি করে তারপর সেটার সমাধান করার জন্য তিনি তাদের প্রশংসা করেন দ্ব্যর্থক উপদেশ দেবার জন্য; একটি মামলার দুই পক্ষের কাছ থেকেই সম্মানী গ্রহণ করার জন্য এবং সেগুলোকে সহজেই একইভাবে পকেটস্থ করার জন্য তিনি তাদের প্রশংসা করেন তিনি জানেন যে এইসব লোকেরা আপনার পেশার লোক চাটুকারিতার মাধ্যমে অনুগ্রহ লাভ করে এরা উন্নতি করতে পারে আর তিনি ভাবতেন যদি তার উত্তরাধিকারী হিসেবে একজন উকিলকে তিনি পেতেন তাহলে তিনি ভাগ্যবান বলে মনে করতেন যার এমন স্পৃহা থাকবে যিনি কিনা সমস্ত অসদাচরণ সহ্য করতে পারবেন, যিনি কিনা খুব বুদ্ধিমান, খুব শান্ত এবং চিন্তাশীল, তার কথা বলার চমৎকার ক্ষমতা থাকবে, আর পারিশ্রমিক ছাড়া যিনি একটি শব্দও উচ্চারণ করতে পারেন না বা নিশ্চুপও থাকতে পারেন না তিনি জানতেন যে আপনার পবিত্র মুখ থেকে যে শব্দই নির্গত হোক না কেন সম্মানী হিসেবে তা স্বর্ণমুদ্রা নিয়ে আসে (কড়া নাড়ার শব্দ শোনা গেল) কে? মনে হচ্ছে কেউ কড়া নাড়ছে (ভলটোরকে) আপনি এখানে থাকুন সেটা আমি ভালো মনে করছি না আর আপনি এমন ভান করুন যেন আপনি খুব তাড়াতাড়ি চলে গিয়েছেন আপনার এখানে আগমন সম্পর্কে আমি কিছু ওজর বের করে নেব আর স্যার, আপনি এখন এই সম্পত্তির উত্তরাধিকারী হবেন এবং তরল সোনার সমুদ্রে সাঁতার কাটবেন মধুর বাহুতে আপনি নিজেকে খুজে পাবেন তখন আপনার চিবুকটিই কেবল দেখা যাবে ওপরে আর ঘনত্বের কারণে সেটাও হবে স্থির সেই সময়ে আমার কথা স্মরণ রাখবেন, আপনার পোষ্যের কথা আপনার ভৃত্যদের মধ্যে আমি সবচেয়ে নিকৃষ্ট নই
ভলটোরঃ এভাবে কথা বলে আমাকে বিব্রত কোরো না, মসকা
মসকাঃ আপনার জিনিপত্রের তালিকা আনার জন্য কখন আপনি আমাকে বলবেন, স্যার? আর উইলের কপিই বা আপনি কখন দেখতে চাইবেন স্যার? তাড়াতাড়ি! আমি সেগুলো আপনার জন্য নিয়ে আসব, স্যার এখন আপনি এখান থেকে চলে যান আপনার মুখে পেশাসুলভ একটা ভাব ফুটিয়ে তুলুন (ভলটোরের প্রস্থান)
ভলপোনিঃ (লাফিয়ে উঠে)-অসাধারণ, মসকা এখানে এসো, তোমাকে চুম্বন করি
মসকাঃ স্থির থাকুন, স্যার করববাসসিও এসেছেন
ভলপোনিঃ থালাখানা সরিয়ে ফেলো শকুন ভলটোর প্রস্থান করেছেন, আর বৃদ্ধ দাঁড়কাক করবাসসিওর আগমন ঘটেছে




Next Part - Volpone - Act - 1 - Scene - 4-5 - Translation in Bangla 

No comments:

Post a Comment

Blog Archive