Total Pageviews

Sunday, January 6, 2019

King Oedipus- Bangla translation - Part - 12 - রাজা ঈডিপাস বাংলা অনুবাদ পর্ব ১২

King Oedipus- Bangla translation - Part - 12 - রাজা ঈডিপাস বাংলা অনুবাদ পর্ব ১২


King Oedipus- Bangla translation - Part - 12 - রাজা ঈডিপাস বাংলা অনুবাদ পর্ব ১২
পর্ব ১২ শুরুঃ
ঈডিপাস : প্রিয়তমা পত্নী আমার, তুমি তার খোজ নাও, যাকে পূর্বে আমি খুজেছিলাম। এ লোকটি কি তার কথাই বলছে?
জোকাস্তা : (ভয়ে ফ্যাকাসে হয়ে) এর সাথে তার কী সম্পর্ক, কোন লোকটির কথা বলছে সে? একেবারেই অনির্ভরযোগ্য ব্যাপার, ভুলে যাও এসব বিষয়।
ঈডিপাস : আহম্মক; এতগুলো প্রামাণ্য বিষয় সামনে থাকার পরও আমি আমার জন্মগত দিকটির কিনারা করতে পারব না এটা হয় না।
জোকাস্তা : না, মহান ঈশ্বরের নামে বলছি, যদি তুমি বাঁচতে চাও, তাহলে এ বিষয়ের ভেতরে প্রবেশ কোরো না, এত করে কি আমার মর্মবেদনা আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে না?
ঈডিপাস : এ ব্যাপারে কোন ভয় কোরো না, আমার পিতামাতা ক্রীতদাস হলেও তাতে তোমার পদমর্যাদা মোটেই ক্ষুন্ন হবে না ।
জোকাস্তা : তবুও বলছি এটা কোরোনা, আমি অনুরোধ করছি, এটা কোরোনা তুমি
ঈডিপাস : আমি অবশ্যই সত্যকে অপ্রকাশিত থাকতে দেব না।
জোকাস্তা : আমি জানি, আমি সত্যিটাই বলছি, আমি তোমার ভালোর জন্যই তোমাকে সতর্ক করছি।
ঈডিপাস : তোমার এই অহেতুক জুজুবুড়ির ভয়টাই আমাকে ধৈর্যহীন করে তুলছে।
জোকাস্তা : অভাগা মানব, ওহ, তোমার সত্যিকার জন্মবৃত্তান্তটা না জানাই তোমার জন্য মঙ্গলকর ছিল।
ঈডিপাস : যাও, তোমরা কেউ গিয়ে সেই মেষপালকটাকে ডেকে আনো আর তোমাদের রানীকে তার বংশমর্যাদা সহকারে এখান থেকে সরে যেতে বলো ।
জোকাস্তা : ওহ, পতিত ও হতভাগ্য জন, তোমার জন্য এটাই আমার একমাত্র শেষ বাক্য।
[রানীর প্রস্থান]
কোরাস গায়ক : মহানুভব, রানী কেন এমন দুঃখবেদনায় মুহ্যমান হয়ে এ স্থান ত্যাগ করলেন? আমার ধারণা তার এই দুঃখভারাক্রান্ত নীরবতা কোন দুর্যোগের পূর্বাভাস ঘোষণা করছে।
ঈডিপাস : যা ঘটার ঘটবে। আমার জন্ম যত নিচু বংশেই হোক না কেন আমি তা জানতে চাই। ওই রমণী হয়ত নিজের পদমর্যাদার অহংকারে আমার সম্ভাব্য নিচু বংশে জন্মের কাহিনীর কথা ভেবে লজ্জা পাচ্ছে। কিন্তু আমি নিয়তির সন্তান, তিনি আমার প্রভূত মঙ্গল করেছেন; অতএব আমার ভাগ্যে অসম্মানজনক কিছু থাকতে পারেনা। ওই রমণীই আমার মাতা যার গর্ভ হতে জন্ম নিয়েছি আমি। এরপর নানা ঘটনাবলির মাঝে আমার জীবন পার হয়েছে। এটাই আমার বংশপরিচয়, এটা কখনোই মিথ্যে হতে পারে না। আমি কে, এটা খুঁজে বের করবই।
কোরাস : আমি যদি ভবিষ্যৎ বক্তার মতো দৃষ্টি সম্পন্ন হই, তবে ওহে সিথেরন, আগামীকাল পূর্ণিমা তিথিতে তুমি জানতে পারবে। ঈডিপাস তোমাকে কতটা শ্রদ্ধা করে আর সম্মান দেখায়, আর আমরা নাচ গান করে আগামীকাল তোমার পুজো দেব। আগামীকাল যেন ঈডিপাস সকল রহস্যের জাল খুলতে পারে। হে ফিবাস, আমাদের সবিনয় নিবেদন, আমাদের সকল প্রার্থনা যেন পূরণ হয়। পাহাড়ী যাযাবর এক মেষপালক প্যান কোন এক রমণীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে তার গর্ভে জন্মদান করেছেন তোমাকে? কিংবা লোক্সিয়ার স্ত্রী তোমাকে গর্ভে ধরেছেন কিংবা আকস্মিকভাবে সাইলেন কিংবা ডিওনিসাসের হাত হেলিকনের কোন জলপরীর নিকট হতে সদ্যোজাত অবস্থায় তোমাকে গ্রহণ করেছিলেন
ঈডিপাস : বয়োজ্যেষ্ঠগণ, আমি সেই মেষপালককে কোন দিন দেখিনি, আমার ধারণা তিনি আপনাদের মতোই মাঝ বয়সী হবেন। আমার একজন পরিচারক তাকে হয়ত এখানে এনে হাজির করবে, আপনারা হয়ত কেউ তাকে দেখেছেন আর দেখলেই তাকে চিনবেন।
কোরাস গায়ক : হ্যা, সে-ই হয়ত হবে, আমি তাকে চিনি, রাজা লেয়াসের মেষপালক সে। সে ছিল খুবই সৎ এবং রাজার বিশ্বস্ত ভৃত্য।
[পরিচারক সহকারে মেষপালকের প্রবেশ]
ঈডিপাস : ঠিক আছে সম্মানিত করিন্থিয়ান, আপনি যার কথা বলেছিলেন, সেই কি এই মেষপালক?
সংবাদবাহক : ইনিই সেই ব্যক্তি।
ঈডিপাস : সামনে এসো বৃদ্ধ মেষপালক, অনুগ্রহ করে আমার পানে তাকাও আর যা প্রশ্ন করব তার জবাব দাও, তুমি রাজা লেয়াসের চাকরি করতে?
মেষপালক : আমি তার চাকরি করতাম। তিনি আমাকে কোথাও থেকে ক্রয় করেননি, তিনি শিশুকাল থেকে আমাকে পালন করেছেন।
ঈডিপাস : তোমাকে কোন কর্মের দায়িত্ব প্রদান করা হয়?
মেষপালক : মহানুভব, আমি সারা জীবনই মেষপালকের কাজ করেছি।
ঈডিপাস : সচরাচর রাজ্যের কোন স্থানে তুমি মেষ চরাতে?
মেষপালক : সিথেরন, আবার কোন কোন সময় থেরাবুটাসে।
ঈডিপাস : তাহলে তুমি এ লোকটিকে দেখেছ কি?
মেষপালক : আপনি কার কথা বলছেন, আমি তো কোন কিছুই স্মরণ করতে পারছি না।
সংবাদবাহক : আমি হতবাক হইনি, আমি তাকে সব স্মরণ করিয়ে দেব। আমি এটা নিশ্চিত যে, আমরা যখন সিথেরনে মেষ চরাতাম এবং একসাথে থাকতাম সে সময়ের কথা তার মনে থাকতে পারে। ওর আওতায় ছিল দুটো ভেড়ার পাল আর আমার আওতায় ছিল একটি পাল। আমরা সেখানে তিন বৎসর ছ'মাস চিলাম। এরপর আমি মেষপাল নিয়ে থাকি আর সে থীবসে ফিরে যায় লেয়াসের প্রাসাদে, এটাই হল আসল বিষয়।
মেষপালক : হ্যা, এটাই সত্যি, এটা তো অনেক আগের কথা।
সংবাদবাহক : ঠিক আছে আমার বৃদ্ধ বন্ধু, তুমি একটি শিশু আমার হাতে অর্পণ করে আমাকে বলনি যে, তুমি এ শিশুটিকে পুত্রস্নেহে পালন করবে?
মেষপালক : (ভীতিপূর্ণ দৃষ্টিতে) কী বলতে চাচ্ছ তুমি? এটা আমাকে এখন জিজ্ঞেস করছ কেন?
সংবাদবাহক : কারণটা হল, বৃদ্ধ বন্ধু আমার, সেই শিশুটি এখন তোমার সামনে দাড়িয়ে
মেষপালক : উচ্ছন্ন যাও তুমি, তোমার জিহবা সংযত করো।
ঈডিপাস : ধীরে ধীরে, প্রবীণ সুধী, আমি মনে করি তোমার চাইতেও সে সৎ আর সত্যি কথাটাই সে বলছে। 

পরের পর্বে যান


No comments:

Post a Comment

Blog Archive