Total Pageviews

Thursday, February 27, 2020

Pride and Prejudice - Jane Austen - Summary in Bengali

Pride and Prejudice  - Jane Austen - Summary in Bengali

Pride and Prejudice  - Jane Austen - Summary in Bengali

জনাব চার্লস বিংলের [Charles  Bingley] নেদারফিল্ড পার্ক এস্টেটে আগমনের খবরে পার্শ্ববর্তী লংবার্ন গ্রামে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় বেনেট পরিবারের কর্তী মিসেস বেনেট তার পাঁচ কন্যারজেন, এলিজাবেথ, (মেরি বেনেট [Mary Bennet], কিটি [Catherine Bennet] অথবা লিডিয়া-যে কোনো একজনকে বিংলের সাথে বিয়ে দিতে মরিয়া হয়ে উঠেন। এক বল নাচের আসরে জেনের সাথে বিংলের প্রথম পরিচয় হয় এবং অপরদিকে বিংলের জাত্যাভিমানী বন্ধু ফিজউইলিয়াম ডার্সি [Fitzwilliam Darcy] এলিজাবেথের সাথে বাজে ব্যবহার করে। পরবর্তী কয়েকটি নাচের আসরের মধ্য দিয়ে জেন বিংলে পরস্পরের ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠে; অন্যদিকে ডার্সি তার উন্নাসিক মনোভাবের বিপরীতে এলিজাবেথের রূপ বুদ্ধিমত্তার প্রতি আকর্ষণ বোধ করতে থাকে। একদিন নেদারফিল্ড পার্কে [Netherfield Park] যাওয়ার পথে বৃষ্টিতে ভিজে জেন অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং সেখানে অবস্থান করতে বাধ্য হয় এলিজাবেথ তার ষার জন্য সেখানে পৌছায় বিংলের বোনেরা তার সাথে কখনোই ভালো আরচণ করে না, তাকে ক্রমাগত খাটো করে দেখতে পছন্দ করে। এর অন্যতম কারণ ছিল ডার্সির প্রতি ক্যারোলিন বিংলের আকর্ষণবোধ। কিন্তু, এর পরেও এলিজাবেথের প্রতি ডার্সির আকর্ষণ কিছুমাত্র কমে না; আবার এলিজাবেথও তাকে একজন অহংকারী ব্যক্তি হিসেবেই ভাবতে থাকে। ইতোমধ্যে মি: কলিন্স [Mr. Collins] একজন বিবাহযোগ্য কন্যার খোঁজে বেনেটদের বাড়িতে আসেন। সম্পর্কে তিনি মি: বেনেটের দুরসম্পর্কের ভাইপো, তার যাবতীয় সম্পত্তির একমাত্র উত্তরাধিকারী এবং একজন বাক্যবাগীশ ধর্মযাজক। প্রায় একই সময় মিঃ বেনেট [Mr. Bennet] এর মেয়েরা জর্জ উইকহ্যাম [George Wickham] নামক এক তরুণ মিলিটারি অফিসারের সাথে পরিচিত হয় এলিজাবেথ তার প্রতি আকৃষ্ট হয় উইকহ্যাম দাবি করে যে অতীতে ডার্সি তার প্রতি অনেক জুলুম করেছিল, যা শুনে ডার্সির সম্পর্কে এলিজাবেথের ভ্রান্ত ধারণা আরও দৃঢ় হয় পরবর্তীতে নেদারফিল্ডে এক বল নাচের আসরে মিসেস বেনেট [Mrs. Bennet]অনেকটা ঢাক ঢোল পিটিয়ে ঘোষণা করেন যে শীঘ্রই জেন বিংলে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হতে যাচ্ছে, যা ডার্সির মনে প্রচণ্ড বিরক্তির উদ্রেক করে। অপরদিকে মি: কলিন্সের দেয়া বিয়ের প্রস্তাব এলিজাবেথ প্রত্যাখ্যান করে। এতে মিসেস বেনেট ক্ষুব্ধ হলেও মিঃ বেনেট সন্তুষ্ট হন। তখন মি: কলিন্স এলিজাবেথের বন্ধু শার্লট লুকাসকে [Charlotte Lucas] বিয়ের প্রস্তাব দেন। শার্লট ভালোবাসাকে গুরুত্ব না দিয়ে কেবল সামাজিক নিরাপত্তার প্রত্যাশায় বিয়ের প্রস্তাবে রাজি হয়ে যায় ইতোমধ্যে বিংলে হঠাৎ ব্যবসায়িক কাজে লন্ডন গমন করে। ক্যারোলিন জেনকে চিঠি লিখে জানায় যে তারা আর নেদারফিল্ডে ফিরবে না। সে আরো জানায় যে বিংলে ডার্সির বোন জর্জিয়ানাকে [Georgiana Darcy] বিয়ে করার পরিকল্পনা করেছে। এই খবর পেয়ে জেন মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে এলিজাবেথ এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয় যে ডার্সি ক্যারোলিন ষড়যন্ত্র করে জেন বিংলের বিচ্ছেদ ঘটিয়েছে। এই সময় তাদের মামা-মামি, মি: মিসেস গার্ডিনার জেনকে লন্ডনে তাঁদের বাড়ি থেকে ঘুরে আসার আমন্ত্রণ জানান, যাতে সে তার দুঃখবোধ কাটিয়ে উঠতে পারে। লন্ডনে ক্যারোলিনের সাথে জেনের দেখা হয় সে ক্যারোলিনের [Caroline Bingley] অবন্ধুসুলভ আচরণে আঘাত পায় ফলে সে যে কেনো বিংলেকে বিয়ে করতে আগ্রহী হয়েছিল, কথা ভেবে জেনের নিজের উপরেই ঘৃণা হতে থাকে। এলিজাবেথ শার্লট মি: কলিন্সের সাথে দেখা করতে যায় এবং সেখানে সে কলিন্সের পৃষ্ঠপোষক লেডি ক্যাথেরিন ডি বার্গের [Lady Catherine de Bourgh] সাথে পরিচিত হয়, যিনি একজন বিত্তশালী মহিলা এবং ডার্সির আত্মীয়া ডার্সিও সেখানে উপস্থিত হয় এবং এলিজাবেথের সাথে এক দীর্ঘ পথভ্রমণে বের হয়, যা এলিজাবেথকে চমকিত করে। যাই হোক, ডার্সি জেনকে বিয়ে করার ব্যাপারে বিংলেকে নিরুৎসাহিত করেছে জানতে পেরে এলিজাবেথ রেগে যায় ডার্সি অতীতকে ভুলে গিয়ে এলিজাবেথের প্রতি প্রেম নিবেদন করে এবং তাকে বিয়ে করতে চায় এলিজাবেথ তার এই প্রস্তাব সরাসরি প্রত্যাখ্যান করে এবং জেনের বিয়ে ভেঙে যাওয়া উইকহ্যামের প্রতি রূঢ় আচরণের জন্য ডার্সিকে দায়ী করে। পরবর্তীতে ডার্সি এক চিঠিতে এলিজাবেথের সব অভিযোগের জবাব দেয় সে জানায় যে তার মনে হয়েছিল জেন বিংলেকে মন থেকে ভালোবাসতে পারেনি। সেজন্যই সে বিংলেকে নিরস্ত করেছিল। সে আরো জানায় যে উইকহ্যাম একজন বদমাশ মিথ্যেবাদী। সব জেনে এলিজাবেথের মনে হতে থাকে যে সে ডার্সিকে চিনতেই শুধু ভুল করেনি, তাকে প্রত্যাখ্যান করার ব্যাপারেও বড়ো বেশি তাড়াহুড়ো করে ফেলেছে। লংবার্নে ফিরে এলিজাবেথ জানতে পারে লিডিয়া বেনেট [Lydia  Bennet] বদমাশ উইকহ্যামের প্রেমে পড়েছে। সে তার পিতাকে বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে বলে, কিন্তু তিনি কিছুই না করার সিদ্ধান্ত নেন। শীঘ্রই এলিজাবেথ গার্ডিনার দম্পতির সাথে বেড়াতে যায় সে তাদের সাথে জনাব ডার্সির সুবিশাল পেম্বারলি এস্টেটে গমন করে এবং নিজেকে সেই বাড়ির গৃহিণী হিসেবে কল্পনা করতে শুরু করে, যখন ডার্সি তার সামনে আসে এবং এলিজাবেথকে তার বোন জর্জিয়ানার সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়, সে আরও অভিভূত হয়ে পড়ে বিংলেও সেখানে উপস্থিত হয় এবং অঙ্গিকার করে যে, সে জেনকে আগের মতোই ভালোবাসে। এরই মধ্যে এলিজাবেথ জেনের কাছ থেকে একটি চিঠি পায়, যার মাধ্যমে সে জানতে পারে যে লিডিয়া উইকহ্যামের সাথে পালিয়েছে। তাকে দ্রুত বাড়ি ফিরে যেতে হয় মেয়েদের ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে যাবে। এই আশঙ্কায় বেনেট পরিবার লন্ডনে লিডিয়ার খোঁজ করতে থাকে। এক সময় মি: গার্ডিনার তাদেরকে খুঁজে বের করেন। তখন উইকহ্যাম লিডিয়াকে বিয়ে করার বিনিময়ে যৌতুক দাবি করে সে জানায় যে অনেক লোক তার কাছে টাকা পায় এই সব দেনা পরিশোধের জন্য যেন তাকে সহায়তা করা হয় শীঘ্রই উইকহ্যাম লিডিয়া বিবাহিত দম্পতি হিসেবে ফিরে আসায় বেনেটদের ধারণা হয় যে মি: গার্ডিনার হয়তো যৌতুকের দাবি মেনে নিয়েছেন অথবা মিটিয়ে দিয়েছেন। মিসেস বেনেট ভেবে আনন্দিত হন যে তার অন্তত একটি মেয়ে পাত্রস্থ হয়েছে (যদিও মি: বেনেট মোটেই খুশি হতে পারেননি) এলিজাবেথ জানতে পারে যে মি: গার্ডিনার [Mr.  Gardiner] নন, তার প্রতি ভালোবাসা থেকে মিঃ ডার্সিই উইকহ্যামের সব দাবি মিটিয়ে দিয়েছে। বিংলে ডার্সি নেদারফিল্ড ফিরে আসে এবং অবশেষে বিংলে জেনকে [Jane Bennet] বিয়ের প্রস্তাব দেয় জেন সানন্দচিত্তে তা গ্রহণ করে। ডার্সি ব্যবসায়িক কাজে লন্ডনে গেলে সেই সময় লেডি ক্যাথেরিন অপ্রত্যাশিতভাবে গ্রামে আসেন এলিজাবেথের সাথে দেখা করেন। তিনি তার উপর চাপ প্রয়োগ করেন যেন সে ডার্সিকে বিয়ে না করার প্রতিশ্রুতি দেয় এলিজাবেথ, কথা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে। লন্ডন থেকে ফিরে আসার পর ডার্সি আবারো এলিজাবেথকে [Elizabeth Bennet]বিয়ের প্রস্তাব দেয় এবং এলিজাবেথ তাতে সম্মতি জ্ঞাপন করে। ডার্সি তার অতিরিক্ত অহংবোধের কথা স্বীকার করে এবং তার বিভিন্ন সময়ের অসৌজন্যমূলক আচরণের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করে। এলিজাবেথও স্বীকার করে যে সে ডার্সির সম্পর্কে ভ্রান্ত ধারণা পোষণ করত। শেষ পর্যন্ত জেন-বিংলে এলিজাবেথ-ডার্সি উভয় জুটি বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয় এবং বেনেট পরিবার তাদের এই আনন্দে শামিল হয়

1 comment:

Blog Archive