Sunday, March 17, 2019

Poetics - Aristotle - Chapter 18 - More rules for the Tragic Poet - Bangla Translation and Explanation

Poetics - Aristotle - Chapter 18 - More rules for the Tragic Poet - Bangla Translation and Explanation

Poetics - Aristotle - Chapter 18
More rules for the Tragic Poet 
Bangla Translation and Explanation
১৮শ পরিচ্ছেদ - ট্র্যাজিক কবিদের জন্যে আরো কয়েকটি নিয়মঃ
প্রত্যেক ট্র্যাজেডি প্রধানত দুটি অংশে শেষ হয়। একটি হল Complication বা জটিলতার সৃষ্টি আর একটি হল জটিলতার মোচনকারী অন্তিম দৃশ্য বা Unravelling Denouement জটিলতার সৃষ্টি অংশে সাধারণত প্লট বহির্ভুত ঘটনা থাকে, প্রায়শই নাটকের অন্তর্গত কিছু ঘটনাও এর সাথে থাকে আর এর শেষ টুকু হল অন্তিম দৃশ্য। Complication বলতে আমি গল্পে সূচনা থেকে সেই অবস্থা পর্যন্ত অংশকে বুঝি, যেখান থেকে নাটকের ঘটনা ভাল বা মন্দ পরিণতির দিকে মোড় নিয়ে থাকে আর Denouement বলতে বুঝি পরিবর্তনের সূচনা থেকে নাটকের উপসংহার পর্যন্ত বিস্তৃত কাহিনীর অংশকে থিয়োডেক্টিস[Theodectes১১শ পরিচ্ছেদের টিকা দেখুন] এর লীনসিউস নাটক থেকেই এর উদাহরণ দেয়া যাক[১১ পরিচ্ছেদের পাদটীকা দ্রষ্টব্য। এখানে উল্লিখিত শিশুটি নিশ্চিত রূপে লীনসিউস[Lynceus] হাইপারমনেস্ট্রার[Hypermnestra] সন্তান অ্যাবাস[Abas] অ্যাবাস প্রথমে দানৌসের[Danaus] হাতে ধরা পড়ে পরে তার পিতা-মাতা লীনসিউসও হাইপারমনেষ্ট্রা বন্দী হয়] এখানে Complication নাটকের মূল ঘটনা সূচিত হবার আগেই ঘটে গিয়েছে, এর সাথে বালকটি ধরা পড়ার ঘটনা তার ফলস্বরুপ তার পিতামাতার গ্রেফতারের ঘটনার সমন্বয়ে আর Denouement পর্ব প্রসারিত হয়েছে হত্যার অভিযোগ থেকে নাটকের উপসংহার পর্যন্ত
প্লটে মিল বা অমিল অনুযায়ীই ট্র্যাজেডিগুলোকে শ্রেণীবদ্ধ করা উচিত; তার মানে তাদের Complication Denouement ব্যাপারটার সাদৃশ্য অনুযায়ী করা উচিত। অনেক কবি আছেন যাঁরা প্লটের Complication  তৈরিতে অত্যন্ত নিপুণ কিন্তু Denouement  এর ব্যাপারে একেবারে অপটু। নাট্য-রচনায় সার্থকতার জন্য এই দুই বিষয়েই প্রয়োগ কৌশল আয়ত্তে রাখা দরকার।
ট্র্যাজেডি চার প্রকার। আমরা পর্যন্ত ট্র্যাজেডির যে-সব মূল উপাদানের কথা আলোচনা করেছি[এখানে অ্যারিস্টটল কোন কোন মৌলিক উপাদানের কথা বলতে চেয়েছেন, তা তেমন স্পষ্ট নয়], তাদের সংখ্যাও কিন্তু তাই। চার শ্রেণীর ট্র্যাজেডি হচ্ছে: Peripeteia বা পরিস্থিতি বিপরীত পরিবর্তন[১০ম অধ্যায়ের টিকা দেখুন] Anagnorisis বা  পরিচয় আবিষ্কারের উপর পুরোপুরি নির্ভরশীল মিশ্র বা যৌগিক ট্র্যাজেডি করুন মর্মস্পর্শী যেমনঃ   অ্যাজাক্স ইক্সিয়নের কাহিনী নিয়ে নির্মিত ট্রাজেডি পেলেউস থিওটাইডিস এর মত নৈতিক চরিত্রের প্রচারধর্মী ট্র্যাজেডি এবং প্রমিথিউস, ফোরসাইডিস নরকের দৃশ্য-সমন্বিত নাটকের ন্যায় দৃশ্যচমৎকারিত্বপূর্ণ ট্র্যাজেডি। কবির উচিত এই সকল উপাদানকেই তাঁর রচনার অন্তর্ভুক্ত করার চেষ্টা করা; পারলে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান যত অধিক পরিমাণে সম্ভব গ্রহণ করা, বিশেষতঃ আজকাল যখন কবিদের দোষ খুজে ফেরা একটা রেওয়াজ হয়ে দাঁড়িযেছে। যেহেতু বিশেষ ধরনের ট্র্যাজেডি রচনায় চূড়ান্ত উৎকর্ষের পরিচয় দিয়ে এসেছেন, এমন অনেক পূর্বের কবির সাক্ষাৎ মিলে, তাই সমালোচকগণ প্রত্যাশা করেন যে এমন কোন কবি অবশ্যই আবির্ভূত হবেন যিনি পূর্বের সকল কবিকে নিজের বিশেষ ধরনের যোগ্যতায় অতিক্রম করে যাবেন।
যে কথাটা অনেকবার বলা হয়েছে, তা মনে রেখে নাট্যকার-কবিকে অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে যাতে করে তিনি তার ট্র্যাজেডিকে মহাকাব্যের কাঠামো দান না করে ফেলেন মহাকাব্যের কাঠামো বলতে আমি বহু কাহিনী সমস্বিত প্লট-গঠনই বুঝি; ব্যাপারটা যেন কোন একজনের পক্ষে গোটা ইলিয়াড[৪র্থ পরিচ্ছেদের টিকা দেখুন] কাহিনীকে নিয়ে একখানা ট্র্যাজেডি রচনার চেষ্টার মত। মহাকাব্যে কাহিনীর দীর্ঘতার অবকাশ আছে বলেই বিভিন্ন অংশের যথাযথ বিকাশ সম্ভব; কিছু নাটকে ধরনের প্রচেষ্টার ফল নৈরাশ্যজনকই হয়ে থাকে। অভিজ্ঞতায় তাই প্রমাণিত হয়েছে। কারণ দেখা গিয়েছে, যে সব কবি ইউরিপিডিস[Euripides - ১৩শ পরিচ্ছেদ দেখুন] মত একটা বিশেষ অংশ নির্বাচন না করে ট্রয়নগরী ধ্বংসের গোটা কাহিনীর নাট্যরূপ দিয়েছেন, অথবা এস্কাইলাসের[Aeschylus] ইলিয়াডের[৪র্থ পরিচ্ছেদের টিকা দেখুন]  মত অংশবিশেষ আশ্রয় না করে নাইয়োবীর[Niobe] গোটা কাহিনী গ্রহণ করেছেন, তাঁরা নাট্য প্রতিযোগিতায় হয় চূড়ান্ত ব্যর্থতা বরণ করেছেন, নয়তো খুবই খারাপ করেছেন। বস্তুতঃ শুধু এই দোষের জন্যই অ্যাগাথনের একটি নাটক ব্যর্থতা বরণ করেছিল। তারপরও এটা সম্ভব যে এবং সরল প্লট নাটক সৃষ্টিতে এই কবিরাই ফল লাভে চমৎকার সার্থকতার-অধিকারী হতে পারেন। অর্থাৎ এমন কিছু সৃষ্টি করতে পারেন যা ট্র্যাজিক এবং আমাদের মানবতা বোধের কাছে আবেদনশীল। ব্যাপারই ঘটে যখন চতুর, দুষ্ট ব্যাক্তি প্রতারিত হয়, যেমন সিসিফাস[Sisyphus] হয়েছিল অথবা দুঃসাহসী শয়তান প্রকৃতির লোক বিপর্যস্ত হয়। এরূপ ঘটা অবশ্য কেবল অ্যাগাথন[Agathon -৯ম অধ্যায়ের টিকা দেখুন] বর্ণিত সেই অর্থেই সম্ভব, যে অর্থে তিনি এমন কি অসম্ভব ঘটনা ঘটে যাওয়ারও সম্তাব্যতার কথা বলেন নাটকের কোরাস যেন একজন অভিনেতারই দায়িত্ব পালন করছে, সেই ভাবেই ব্যাপারটা দেখা উচিত একে সমগ্র নাটকে একটা অবিচ্ছেদ্য অংশ বলেই মনে করা উচিত। নাটকের ঘটনায় এর একটা বিশেষ ভূমিকা থাকা উচিত, যেমনটি দেখা যায় সফোক্লিসের[Sophocles৩য় অধ্যায়ের টিকা] নাটকে; কিন্তু ইউরিপিডিসে নয়। পরবর্তী নাট্যকারদের বেলায় অবশ্য দেখা যায়, তাদের প্রস্তুত নাটকের প্লটে সঙ্গে কোরাসের সম্পর্ক, অন্য কোন ট্র্যাজেডির বিষয়ের সঙ্গে সম্পর্কের চেয়ে বেশী নয়।১৬ ফলে তাঁদের কোরাস গীতিগুলো নাটকের মাঝে বিরামগীতিতে[Choral Interlude] পরিণত হয়েছে। আর রীতি চালু করেছিলেন অ্যাগাথন। কিন্তু প্রশ্ন থেকে যায়, তাই যদি হল, তবে নাটকে ধরনের বিরামগীতির ব্যবহার, আর এক নাটক থেকে তুলে এনে অন্য নাটকে স্থানান্তরিত দীর্ঘ উক্তি[ উদাহরণস্বরুপ Homer এর ইলিয়াড কাব্যের প্রথম সর্গে এবং অডিসির সপ্তম সর্গে দীর্ঘ বর্ণনাত্মক অংশ দেখা যায়] অথবা কোন উপকাহিনী জুড়ে দেওয়ার মধ্যে পার্থক্যটা রইল কোথায়?
১। Ajax The Greatঅ্যাজাক্সঃ একজন গ্রীক বীর যোদ্ধা। স্যালামিসের [SalamisIsland] রাজা টেলামনের [Telamon] ও পেরিবোয়া [Periboea] পুত্র। ইলিয়াড[Iliad] মহাকাব্য থেকে জানতে পারি যে অ্যাজাক্স ছিলেন বিশাল আকৃতির মহাবলশালী পুরুষ। তিনি কথায় ধীর অথচ স্পষ্টভাষী ছিলেন এবং ব্যক্তি হিসাবে ছিলেন বিশেষ আকর্ষণীয় ট্রয়যুদ্ধে তিনি সাহস শৌর্ষবীর্যের পরাকাষ্টা দেখিয়েছিলেন গ্রী বীরদের মধ্যে মহাবীর একিলিসের[Achilles] পরেই তাঁর স্থান ছিল। বার বার তিনি গ্রীকদের আক্রমণে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন; কখনও বা পশ্চাদপসরণের কালে শত্রুকে এককভাবে রুখে দাঁড়িয়ে স্বপক্ষীয় সৈন্যদের নিরাপদে সরে আসার পথ করে দিয়েছেন। একীয়ানদের[Achaean Army] বা গ্রীকদের পক্ষে তিনি ছিলেন দুর্ভেদ্য রক্ষাপ্রাচীর স্বরূপ। তিনি ট্রয়ের[Trojan] মহাবীর হেক্টরের[Hector] সঙ্গে দ্বন্দযুদ্ধে তাঁকে প্রায় পরাস্ত করেছিলেন অডিসিয়াসের সঙ্গে তার ল্ল প্রতিযোগিতা অমীমাংসিতভাবে শেষ হয়েছিল। অ্যাজাক্সকে অডিসিয়া অশেষ ধূর্ততার সাহায্যে প্রতিরোধ করেছিলেন অডিসিতে উল্লেখ আছে যে, একিলিসের মৃত্যুর পর কে তাঁর পোশাক অন্ত্রশস্ত্রাদির অধিকারী হবেন, তা নিয়ে অ্যাজাক্স অডিসিয়াসের মধ্যে বিবাদ বাধলে বিচারকের রায় অডিসিয়াসের পক্ষে গেলে অ্যাজাক্স ক্রোধোন্মাদ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। সফোক্লিসের অ্যাজাক্স নাটকে এই সম্পর্কে যে তথ্য পাওয়া যায় তা হলঃ দারুণ ক্রোধ হতাশাগ্রস্থ হয়ে আজাক্স উন্মাদ অবস্থায় আত্মহত্যা করেন। গ্রীকপুরাণে আজাক্স সম্বন্ধে নানা কাহিনী চালু রয়েছে।
২। Ixion - ইক্সিয়নঃ গ্রী পুরাণে উল্লিখিত আছে যে, ইক্সিয়নই প্রথম ব্যক্তি, যিনি তার কোন আত্মীয়কে হত্যা করেছিলেন ভিন্নতর সূত্রে জানা যায় যে, তিনি তার শ্বশুর ইয়োনিয়াসকে[Eioneus] হত্যা করেছিলেন, শুধু কনে-পণ থেকে অব্যাহতি পাওয়ার জন্য অনেকে মনে করেন ইয়োনিয়াস রক্ত সম্পর্কে তার জ্ঞাতি ছিলেন এই পাপ কার্যের জন্য অভিশপ্ত হলে, জিউস[Zeus] তাকে পরিশুদ্ধ হতে সাহায্য করেন, কিন্তু তারপর ইক্সিয়ন স্বয়ং জিউস-পত্নী হেরার[Hera] সতীত্ব নাশের চেষ্টা করলে, প্রথমে তাকে প্রতারিত করা হয় তার সামনে হেরারই এক মূর্তি মেঘময়ী মুর্তি উপস্থাপনা করে। আসলে ম্যাগনেসিয়ার একটি মাদী ঘোরার সঙ্গে তার মিল করানো হয়। এই মিলনের ফলেই নাকি সেন্টররা[Centaur] জন্মগ্রহণ করে। মতান্তরে সেণ্টরদের পিতা সেন্টরাস[Centaurus] কিন্তু তাঁর হেরার সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতার কথা নিয়ে গর্ব করার ফলে তাঁকে নরকে যেতে হয় এবং সেখানে এক ঘূর্ণায়মান অগ্নিচক্রে সংযোজিত হয়ে তাকে অপকর্মের শাস্তি হিসাবে অনন্তকাল ধরে ঘুরপাক খেতে হচ্ছে। ইক্সিয়ন থেসালের[Thessaly] ল্যাপিথদের[Lapith] রাজা ছিলেন বলেও উল্লিখিত আছে।
৩। Peleus - পেলেউস অন্যতম নায়ক মহাবীর একিলিসের পিতা পেলেউ এর চরিত্রাশ্রয়ী একটি নাটকের কথা এখানে বলা হয়েছে। সফোক্লিস এবং ইউরিপিডিস উভয়েই পেলেউস চরিত্রাশ্রয়ে নাটক রচনা করেছিলেন
৪। Phthiotides - থিওটাইডিস: সফোক্লিস-বিরচিত থিয়োটিসের স্ত্রীলোকগণ নামক নাটকেরই নামান্তর। মনে হয় এই নাটকে সফোক্লিস স্ত্রীলোকের মনস্তত্ত্ব অনুধাবনের প্রয়াস পেয়েছিলেন দুর্ভাগ্যের বিষয় নাটকটি কালের অতলে হারিয়ে গেছে।
Prometheus -  প্রমিথিউস সম্ভবত এটি এস্কাইলাস বিরচিত কোন স্যাটির নাটকের[Satyr Play] নাম। প্রায় সকল সমালোচকই মনে করেন যে এস্কাইলাসের বন্দী প্রমিথিউস[Prometheus Bound] সম্পূর্ণতঃ একটি ভিন্ন নাটক
৬।  Phorcides : ফোরসাইডিস অর্থাৎ ফরসিসের[Phorcys] কন্যাগণ এস্কাইলাস তাঁর কোন স্যাটায়ার নাটকে এদের নাম ব্যবহার করেছেন। গ্রী পুরাণে ফরসিসকে নেরেউস এবং পৃথিবীর সন্তান রূপে উল্লেখ করা হয়েছে। ফরসি তাঁর ভগিনী সিটোকে[Ceto] বিবাহ করে; আর এই বিবাহেরই ফল হল তার বিভিন্ন কন্যারা। এরা হল এক চক্ষুর অংশীদার তি ডাইনী বোন, গর্গনগণ, সাইরেনগণ এবং সমুদ্রপথে নাবিকদের মৃত্যুর দিকে আকর্ষণকারিনী ছয় মাথা বিশিষ্ট ক্কিল্লা।
৭। Niobe - নাইয়োব বা নিয়োবীঃ  ট্যাণ্টেলাসের [Tantalus] ন্যা। তার বিবাহ হয়েছিল জিউ পুত্র এম্ফিয়নের [Amphion]সঙ্গে এই বিবাহের ফলে নিয়োবী সাত পুত্র সাত কন্যার জননী হয়। এই চতুর্দশ সন্তানের জননী হওয়ার গর্বে সে নিজেকে লেটোর[Leto] চেয়ে শ্রেষ্ঠা নারী বলে মনে করত। কারণ লেটোর সন্তান সংখ্যা ছিল মাত্র দুই এতে ক্রুদ্ধ হয়ে লেটোর পুত্র পোলো[Apollo]  আর্টেমিস[Artemis] নিয়োবীর চৌদ্দটি সন্তানকেই তীর নিক্ষেপ করে হত্যা করে। এতগুলো সন্তানের শোকে নিয়োবী একেবারে পাথর হয়ে গিয়েছিল সেই পাথরের চোখ দিয়েই নাকি শোকাশ্রুর বন্যা বয়ে গিয়েছিল এস্কাইলাস নিয়োবী- কাহিনীর কোন অংশকে নাট্যরূপ দান করেছিলেন, তা জানা যায়নি।
৮। Sisyphus - সিসিফাস করিস্থের[Corinth] রাজা ইয়োলাসের[Aeolus] পুত্র অসাধারণ চতুর এই সিসিফাস এক দুর্ধর্ষ দস্যুরূপে মানুষের আতঙ্কের কারণ হয়ে দাড়িয়েছিল শোনা যায় মহাবীর থিসিয়াস[Theseus] তাকে হত্যা করেছিলেন পাপ কাজের শাস্তিস্বরূপ সিসিফাস নরকগামী হয়েছিল এবং সেখানে তার দুর্গতি বিধানের জন্য তাকে এক অসাধ্য কাজ করতে দেওয়া হয়েছিল এক বিশাল প্রস্তর খণ্ডকে পাহাড়ের উপর দিকে গড়িয়ে দেওয়ার হুকুম হয়েছিল তার প্রতি সে যতবারই তা করতে গিয়েছিল, ততবারই তা নীচে গড়িয়ে পড়েছিল ঘর্মাক্ত অবস্থায় প্রাণপণ চেষ্টা করেও এই কর্মচক্র থেকে সে রেহাই পায় নি। অডিসি[Odyssey] মহাকাব্যের ১১দশ অধ্যায়ে অডিসিয়াসের পাতালে[Hades] অবতরণ অংশে সিসিফাসের উল্লেখ পাওয়া যায়।



No comments:

Post a Comment

Trending