Search This Blog

Total Pageviews

Saturday, November 16, 2019

MICHAEL - William Wordsworth - Summary and Analysis in Bangla

MICHAEL - William Wordsworth - Summary and Analysis in Bangla
MICHAEL - William Wordsworth - Summary and Analysis in Bangla

মাইকেল - আলোচনা 
মূল ঘটনাঃ
Michael কবিতাটি ছিল William Wordsworth এর গ্রাম্য কবিতা (Pastoral poem) লেখার প্রথম চেষ্টা। যেহেতু Pastoral poem এর পারিপার্শিক অবস্থা পরিবেশ থাকে গ্রামকেন্দ্রিক, তাই Wordsworth কবিতার শুরুতেই একটি গ্রামীন নির্জন রহস্যময় পরিবেশ সৃষ্টি করেছেন। আমাদেরকে নিয়ে গিয়েছে নিয়ে গেছেন গ্রীনহেড গীলের অশান্ত ছোট নদীর পাশের পর্বত সংলগ্ন উপত্যকায়। কবিতাটিতে এমন একজন পিতার ঘটনা বর্ণনা করা হয়েছে যিনি সন্তানের কাছ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন একজন মেষপালক মাইকেল তার নাম, যার সন্তান জন্ম লাভ করে বৃদ্ধ বয়সে তিনি সন্তানকে প্রচণ্ড ভালোবাসতেন এবং নিজের তত্ত্বাবধানে তাকে বড় করে তুলেছেন সন্তানকে নিয়ে আশার আলো জ্বেলেছেন লিউক তার সন্তান, খুবই পরিশ্রমী পিতামাতার প্রতি শ্রদ্ধাশীল সে গভীরভাবে ভালোবাসতো তার বৃদ্ধ পিতামাতাকে হঠাৎ জীবনের বাঁক পরিবর্তন হয়ে যায় পরিবারের এক নিদারুণ পরিস্থিতিতে লিউক বাধ্য হয়ে শহরে এক আত্মীয়ের কাছে যায় ব্যবসা করে অর্থ উপার্জন করার আশায় মাইকেলের জন্য ওই টাকার দরকার ছিল যা তাকে তার পৈতৃক সম্পত্তি রক্ষা করতে সাহায্য করবে, যা তার এক ভাগনের কাছে বন্ধক রেখেছিলেন এবং ওই টাকা ফেরৎ না দিলে সম্পত্তি হারাবেন বলে উকিল নোটিশ জারি হয় যাবার মুহূর্তে মাইকেল তার ছেলেকে নিয়ে যান এক পাহাড় চূড়ায় যেখানে পাথর জড়ো করে রাখা যা দিয়ে তৈরি হবে মেষের খোয়াড় মাইকেল লিউককে খোয়াড় তৈরির জন্য একটি পাথর ঠিক করা জায়গায় রাখতে বলেন, লিউক তাই করে মাইকেল লিউককে আরো বলেন শহরে থাকা কালে যখনি বাড়ির কথা মনে পড়বে অথবা খারাপ অবস্থার মধ্যে পতিত হবে, সে সময় যেন এই মুহুর্তের কথা স্মরণ করে যা তাকে রক্ষা করবে শহরে যাবার পর প্রথম দিকে বেশ ভালো খবর আসতে থাকে যা এই বৃদ্ধ দম্পতিকে সুখের আশ্বাস দিত কিন্তু অচিরেই লিউক তার কাজের প্রতি অমনোযোগী হয়ে পড়ে; খারাপ সঙ্গ গ্রহন করে যা তার আত্মীয়কে হতাশ করে লিউক এক সময় তার ভুল বুঝতে পারে কিন্তু ততোক্ষণে বেশ দেরি হয়ে গেছে তার পিতামাতা সব কিছু জেনে গেছে ফলে লিউক তার, ওই কলুষিত মুখ আর পিতামাতাকে না দেখানোর শপথ নিয়ে ফ্রান্সে পালিয়ে যায় মাইকেলকে এই ঘটনা এত কষ্ট দেয় যে তার সমস্ত দৃঢ়তা নষ্ট হয়ে যায়, তিনি একেবারে ভেঙে পড়েন সব আশা ভরসা মটিতে মিশে যায় এর সাত বছর পরে মাইকেল তাঁর সেই খোয়াড় অসমাপ্ত রেখেই মারা যান মৃত্যুর পরে তাঁর স্ত্রী প্রায় তিন বছর বেঁচে ছিলেন কিন্তু তাঁর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে ওই জমি অন্যের দখলে চলে যায় চিরতরে অবসান ঘটে বৃদ্ধ দম্পতির উপাখ্যান
চরিত্রসমূহ
এখানে কবি কয়েকটি চরিত্রকে খুবই সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন, Wordsworth-এর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ঐসব চরিত্রগুলো আমাদের সামনে একেবারে বাস্তবরূপে দেখা দেয়। দুই ধরনের চরিত্র ১। দৃশ্যমান চরিত্র ২। অদৃশ্য চরিত্র। মিখায়েল, ইসাবেল তাদের সন্তান লিউক হল দৃশ্যমান চরিত্র আর দু-একটি অদৃশ্য চরিত্র রয়েছে যেমনঃ মিখাএলের ভাগ্নে, লন্ডনে মিখায়েলের দূরসম্পর্কের আত্মীয়।  Michael চরিত্রটিকে আমরা দেখি একজন আদর্শ মেষপালক-কৃষক, যিনি কঠোর পরিশ্রম করেন, যেকোনো দুঃখকে জয় করতে পারেন, তার সন্তান স্ত্রীর প্রতি যত্নশীল এবং তাদের গভীরভাবে ভালোবাসেন, যা সত্যি ভোলার মত নয়। Isabel, মাইকেলের স্ত্রী, তিনিও বেশ পরিশ্রম করে থাকেন, সংসারের সমস্ত কাজকর্ম সমাধা করেন সুচারুভাবে, স্বামী ছেলের প্রতি যত্নশীল, যা তাকে মাইকেলের যোগ্য স্ত্রীরূপেই প্রতীয়মান করেছে। Luke- আমাদের কাছে এক জীবন্ত চরিত্র, যদিও তাকে আমরা তার পিতার চোখেই দেখেছি কেবল।
Michael  সম্পূর্ণ কবিতা অনুবাদঃ  
পর্ব ১,               পর্ব ২,             পর্ব ৩

আলোচনাঃ
Lyrical Ballads- এর প্রথম সংস্করণ প্রকাশিত হয়েছিল ১৭৯৮ সালে, যার মাধ্যমে রোমান্টিক যুগের সুচনা হয়েছিল। তবে Michael কবিতাটি Lyrical Ballads- এর প্রথম সংস্করনে ছিল না। ১৮০১ সালে Lyrical Ballads- এর ২য় সংস্করণে এই কবিতাটি প্রকাশিত হয়। William Wordsworth তাঁর এক বন্ধুকে -বিষয়ে চিঠিতে লিখেছিলেন, আমি একজন শক্তিশালি প্রাণবন্ত চেতনাশক্তির অধিকারী ব্যাক্তির চিত্রকল্প তৈরীর চেষ্টা করেছি। যে লোকটি মানব হৃদয়ের দুটি প্রধান মায়া মমতার অনুষঙ্গ (অর্থাৎ পিতৃস্নেহ সম্পদের প্রতি ভালোবাসা) দ্বারা ধ্বংস (Agitated) হয়েছেন। William Wordsworth ১৮০০ সালে যখন Grasmere এর Town-End থাকতে সে সময়ে Michael কবিতাটি রচনা করেন। কবিতার ঘটনা এবং চরিত্রলিপি গ্রহণ করা হয় অনেক বছর আগে উক্ত শহরে বসবাসরত এক পরিবার থেকে। এই কবিতায় উঠে আসা গ্রামীণ পটভূমি Dove Cottage নয় বরং Greenhead Ghyll. এটা Wordsworth-এর জন্য স্বাভাবিক ছিল যে তিনি গ্রামীণ প্রেক্ষাপটের কবি হয়ে উঠবেন। তিনি সব সময় সত্যবাদিতা, কর্মনিষ্ঠতা, মানবিকবোধ আত্মমর্যাদাকে প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছেন, যা তিনি শিখেছিলেন এই গ্রামীণ সরল কিন্তু উন্নত জীবন-যাপনে থেকে।
কবির বর্ণনামূলক কবিতার মধ্যে Michael অন্যতম মর্যাদার অধিকারী অনেকে এটিকে তার শ্রেষ্ঠ গীতি কবিতাও বলে থাকেন কবি একে গ্রামীণ জীবন বিষয়ক কবিতা বলেছেন কবি বিশ্বাস করতেন, কবিতা হবে জীবনের প্রতিফলন এবং তা রচিত হবে সাধারণের প্রতিদিনকার ভাষায় যা ছিল আঠারো শতকের বৈশিষ্ট্যের সম্পূর্ণ বিপরীত মাইকেল কবিতাটি তাঁর কাব্যতত্ত্বের বাস্তব প্রতিফলনরূপে ধরা দিয়েছে আমরা দেখতে পাই যে মেষপালকের প্রতিদিনকার ভাষায় তাদের জীবনাচার বর্ণনার মাধ্যমে কবি তাঁর বক্তব্যকে সফল করে তুলেছেন কিছু লাইন তুলে ধরা হলো:
Thus in his Father's sight the Boy grow up:
And now, when he had reached his eighteenth year,
He was his comfort and his daily hope. (Lines 204-6)
If here he stay,
What can be done? Where every one is poor,
What can be gained? (Lines 253-55)
At eighty-four
I still am strong and hale; do thou thy part;
I will do mine.- I wil begin again
With many tasks that were resigned to thee; (Lines 391-92)


এই সব লাইনে যে ভাষা আমরা দেখতে পাই তা একান্ত কৃষিভিত্তিক সমাজের যারা তাদের জীবনকে পাহাড়েই নিবদ্ধ করে রাখে এবং এখানেই উপার্জনের চেষ্টা করে, কঠোর পরিশ্রম করে বেঁচে থাকে এখানে দেখি কবির ভাষা খুবই সাধারণ, কিন্তু অসাধারণভাবে আমাদের হৃদয়কে আলোড়িত করে এবং মাইকেলের মর্মবেদনা উপলব্ধি করতে সহায়তা করে কবিতাটি কোনো উচ্চমার্গীয় বিষয়ের উপর রচিত নয় এটি একজন মেষ পালকের জীবনের কিছু মর্মান্তিক ঘটনার উপর রচিত কিন্তু এটি এতই ঘটনার মর্মমূলে প্রোথিত যে আমরা অসাধারণ বলতে বাধ্য হই Wordsworth নিজেই বলেছেন, A story enriched with strange event' (Line 19), 'It is a history, homely and rude, কবিতায় কোনো ধরনের নাটকীয়তা নেই, নেই কোনো মানসিক উদ্দীপনা তাছাড়া কবিতার শেষ অংশ তেমন কোনো গুরুত্ব বহন করে না, যা করার কথা ছিল লুকের নৈতিক অবক্ষয় এবং তার লন্ডন শহর ত্যাগের ঘটনা একটু অস্বাভাবিকভাবে দেখানো হয়েছে যা আমাদের একটু বিরক্ত করতে পারে ৪৮২ লাইনের কবিতায় মাত্র অর্ধডজন লাইন আছে যা এর ক্লাইমেক্স প্রকাশ করেছে এবং সেটি ঘটেছে অনেকটা প্রথম দিকে যখন আমরা দেখি মাইকেল খুশি মনে তার নিত্যনৈমিত্তিক কাজে ব্যস্ত সেই লাইনগুলো হলো:
Meantime, Luke began
To slacken in his duty; and, at length,
He in the dissolute city gave himself
To evil courses: ignominy and shame
Fell on him, so that he was driven at last
To seek a hiding place beyond the sea.
ফলে এই কবিতার গুরুত্ব সম্পর্কে পাঠক একটু দ্বিধার মধ্যে পড়ে যাওয়া স্বাভাবিক কবিতাটি মূলত এর করুণ উপলব্ধির জন্যই স্মরণে থাকবে এটা হৃদয়কে গভীরভাবে নাড়া দেবার মতোই গল্প Wordsworth মানুষের বেদনাকে কবিতায় প্রকাশ করতে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন, যা তার মাইকেল কবিতায় প্রতীয়মান হয় সন্তানের প্রতি বৃদ্ধের যে ভালোবাসা প্রকাশিত হয়েছে তা যেকোনো পাঠককে স্পর্শ করে
Exceeding was the love he bore to him,
His heart and his heart's joy! for often-times
Old Michael, While he was babe in arms,
Had done him female service ...
and he had rocked
His cradle, as with a woman's gentle hand. (Lines 151-59)

আমরা গভীরভাবে অনুভব করি যখন লুকের শহরে যাবার বন্দোবস্ত হবার পরে Michael তাকে ভালোবাসার কথাগুলো প্রকাশ করেন এই কথাগুলো এত হৃদয়স্পর্শী ছিল যে Luke শুনে কেঁদে ফেলে এবং আমরা পাঠকও তার কান্নায় শামিল হই শেষ পর্যন্ত কবিতাটি বেদনাদায়ক পরিণতির মাধ্যমে শেষ হয় এবং Michael-এর সমস্ত স্বপ্ন বিলীন হয়ে যায়
His bodily frame had been from youth to age
Of an unusual strength. Among the rocks
He went, and still looked up to sun and cloud,
And listened to the wind; and, as before,
Performed all kinds of labour for his sheep,
And for the land, his small inheritance.
And to that hollow dell from time to time
Did he repair, to build the Fold of which
His flock had need. ’Tis not forgotten yet
The pity which was then in every heart          465
For the old Man—and ’tis believed by all      
That many and many a day he thither went,   
And never lifted up a single stone.
তার দেহে নেমে এসেছিল ভাঙাচোরা বার্ধক্য
তখনো পাহাড়ে হাঁটতে হাঁটতে সূর্য দেখতেন
মেষচরানো ক্ষেতের কাজ শেষে
কান পেতে শুনতেন বাতাসের গহীন শব্দ;
মেষের খোয়াড় নির্মাণের জন্য সময়ে সময়ে
উপত্যকায় করতেন জায়গা নির্ধারণ।
মাইকেলের হৃদয়ের তীব্র ব্যথা কেউ ভোলেনি,
সবাই বিশ্বাস করে অনেক অনেক দিন ধরে
দিনের পর দিন তিনি সেখানে গিয়েছিলেন
কিন্তু সেখানে একখণ্ড পাথরও উঠাতে সক্ষম হননি।  


No comments:

Post a Comment

Popular Posts